গাছে বাঁধা সেই লাশটি তৃতীয় লিঙ্গের আলমগীরের

প্রকাশিত: ৭:৪৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২১ | আপডেট: ৭:৪৩:অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২১

যশোরের অভয়নগরে গাছে বাঁধা অজ্ঞাত লাশের পরিচয় মিলেছে। নিহতের নাম আলমগীর হাওলাদার (৪০)। তিনি উপজেলার বৌবাজার এলাকার মৃত ছামসু হাওলাদারের ছেলে।

আজ বুধবার সকালে ধোপাদী গ্রামের উত্তরপাড়া এলাকার কবিরাজ বাগানের মধ্যে একটি দেবদারুগাছে বাঁধা একটি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় গলায় প্যান্ট দিয়ে ফাঁস দেওয়া এবং ওড়না ও কাপড়ের বেল্ট দিয়ে হাত-পা বাঁধা বিবস্ত্র অবস্থায় ছিল লাশটি।

নিহতের পরিবার জানায়, আলমগীর হাওলাদার তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিল। মঙ্গলবার বিকেলে বাসা থেকে বেরিয়ে রাতে আর ফিরে আসেনি। বুধবার দুপুরে থানা পুলিশের মাধ্যমে খবর পেয়ে লাশ শনাক্ত করেছে তারা।

অভয়নগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিলন কুমার মণ্ডল জানান, ধারণা করা হচ্ছে তার গলায় মাফলার ও জামা-কাপড় পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার লাশটি গাছে বেঁধে রাখে।

থানায় খবর দেওয়ার পর পুলিশ বুধবার সকাল ১০টার দিকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। অজ্ঞাত হিসেবে উদ্ধারের পর নিহতের ভাই শাহ আলম মরদেহ শনাক্ত করেন।

শাহ আলম জানিয়েছেন, আলমগীর তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) শাহিনের সাথে মিলে চারজনের একটি দলে নাচ-গান করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। তাছাড়া তিনি মাঝে-মধ্যে রঙ মিস্ত্রীর কাজও করতেন।

ধোপাদি কবিরাজপাড়ার বাসিন্দা ফারুক হোসেন কবিরাজ জানান, সকালে তাদের বাড়ির পাশের বাগানে এক মেহগনি গাছের সাথে লাশটি বাঁধা অবস্থায় দেখা যায়। গাছে বাঁধা যুবকের মরদেহ তার পরনের কাপড়-চোপড় এবং কোমরের বেল্ট দিয়ে বাঁধা অবস্থায় ছিল।

ময়না তদন্তের জন্য লাশটি যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।