গাজীপুরে নিরাপদ হেফাজতীদের আবাসন কেন্দ্রে নারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ৯:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১ | আপডেট: ৯:১২:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১
ফাইল ছবি

গাজীপুরে মহিলা, শিশু ও কিশোরী হেফাজতীদের নিরাপদ আবাসন কেন্দ্রে গলায় ফাঁসি লাগানো অবস্থায় হেফাজতী নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে মহানগরীর মোগড়খাল এলাকায় অবস্থিত ওই কেন্দ্রের তৃতীয় তলায় ৩০৩ নম্বর রুমের টয়লেট থেকে তার লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহতের নাম নাজমা আক্তার (২০), তিনি ময়মনসিংহের নান্দাইল থানার উত্তর কোনাপাড়া গ্রামের মোঃ হারেছ আলীর মেয়ে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন বাসন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মিজানুর রহমান জানান, ঢাকা শাহআলী থানার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দায়ের করা একটি মামলায় গত ২২ ডিসেম্বর গাজীপুর মহানগরের কোনাবাড়ী থানাধীন সমাজসেবা অধিদপ্তরের শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র (বালিকা) হতে নাজমা আক্তার এ প্রতিষ্ঠানে আসে। তার হেফাজতী সিরিয়াল নং-১২২৯ এবং ওই দিন থেকে এ কেন্দ্রের হেফাজতী ছিল।

নিরাপদ আবাসন কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরো জানান, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ওই কেন্দ্রে হেফাজতে থাকা সকল হেফাজতীদের প্রতিদিনের মতো ভবনের তৃতীয় তলা থেকে নিচে নামানো হলে ওই নারী মাথা ব্যাথার অযুহাতে নিচে নামেননি। বেলা সোয়া একটার দিকে সবাইকে ভবনের উপরে পাঠালে সেখানে ৩০৩ নম্বর রুমে টয়লেটের দরজার সাথে ওই নারীর গলায় ওড়না প্যাঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায় ওই কেন্দ্রের অপর হেফাজতীরা। খবর পেয়ে ডিউটিরত নারী পুলিশ সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে ময়না তদন্তের জন্য তার মরদেহ মর্গে রাখা হয়। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।