গাজীপুরে স্বাস্থ্য সুপারের বাসা থেকে কিশোরী গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ৫:৩৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০২১ | আপডেট: ৫:৩৮:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৮, ২০২১
প্রতীকী ছবি

গাজীপুর মহানগরের কাশিমপুরে জেলা স্বাস্থ্য সুপারের বাসা থেকে এক কিশোরী গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে সত্য রঞ্জন ধরের বাসা থেকে পুলিশ এ লাশ উদ্ধার করে।

গৃহকর্মী চন্দনা বর্মন কালিয়াকৈর উপজেলার কালামপুর (বর্মন পাড়া) গ্রামের মৃত নন্দন বর্মনের মেয়ে। সে দীর্ঘ ৪ বছর যাবৎ কাশিমপুর বাজার সংলগ্ন পূবালী ব্যাংকের পিছনে গাজীপুর জেলা স্বাস্থ্য সুপার সত্য রঞ্জন ধরের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করছিলো। রোববার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জিএমপি কাশিমপুর থানার ওসি।

কাশিমপুর থানার ওসি মাহবুবে খোদা জানান, ভবনের দ্বিতীয় তলায় বাড়ির মালিকের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করতো চন্দনা। হঠাৎ শনিবার দুপুর বেলা ভবনের নিচতলায় ওয়েটিং রুম পরিষ্কার করার কথা বলে চলে আসেন চন্দনা। তার কিছুক্ষণ পরেই বাড়ির লোকজন তাকে ওয়েটিং রুমের ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো মরদেহ ঝুলতে দেখে নিচে নামিয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে সুরতহাল করার সময় তার শরীরে একটি ক্ষতের চিহ্ন পায়। এতে প্রথমে কিছুটা সন্দেহ হয়। পরে তার দাদা এসে জানায় এই ক্ষত চিহ্নটি আগের। নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গৃহকর্তা সত্য রঞ্জন ধর জানান, ছোট বেলায় বাবা নন্দন বর্মনকে হারায় চন্দনা। বাবার আদর সোহাগ থেকে বঞ্চিত হয়ে একমাত্র মা দীপালি বর্মনকে আকড়ে ধরে বেঁচে ছিলো চন্দনা বর্মন। কিন্তু গত আড়াই মাস আগে সেই গর্ভধারিণী মাও পাড়ি জমান না ফেরার দেশে। মাকে হারিয়ে চন্দনা বর্মন কেমন যেন অন্য মনস্ক হয়ে যায়।