গান গাইতে না পারায় ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীকে শিক্ষকের বেদম প্রহার!

প্রকাশিত: ৭:৩৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৩৪:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৯

গান গাইতে না পারাটাই কাল হলো ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর। শিক্ষক গান গাইতে বলার পর তা না পারায় কথা জানানোয় ঐ ছাত্রকে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে আল ফারুক ইনস্টিটিউটের সহকারী শিক্ষক জামাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) এই ঘটনা ঘটে।

প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ মো. এমদাদ উল্লাহ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘আমি মারধরের আঘাতের চিহ্ন দেখেছি।’

ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী ওই শিক্ষার্থী জানায়, তৃতীয় ঘণ্টায় বাংলা শিক্ষক না আসায় ক্লাস‌টি খা‌লি ছিল। এসময় কোনও ক্লাস না থাকা সত্ত্বেও শিক্ষক জামাল উদ্দিন এসেই আমাকে গান গাইতে বলেন। আমি গান পা‌রি না জানানোয় তি‌নি ক্লাস থেকে বে‌রিয়ে অন্যরুম থেকে এক‌টি বেত এনে এলোপাথা‌ড়ি পেটাতে থাকেন। এসময় বেত ছাড়াও হাত দিয়ে চুলের মু‌ঠি ধরে চড়-থাপ্পড় দেন।

বিদ্যালয়ের একা‌ধিক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা জানান, শিক্ষক জামাল উদ্দিনের মাথা একটু গরম। কোনও কারণ ছাড়াই এর আগেও অনেক শিক্ষার্থী‌কে এভাবে পি‌টি‌য়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক জামাল উদ্দিনের সঙ্গে যোগাযো‌গ করা সম্ভব হয়নি।

আল ফারুক ইনস্টি‌টিউটের অধ্যক্ষ মো. এমদাদ উল্লাহ বলেন, ‘ক্লাসে গান গাইতে হবে এটার কোনও নিয়ম নেই। শিক্ষার্থীকে মারধরের আঘাতের চিহ্ন আ‌মি দেখে‌ছি। অভিভাবকরাও আমার কাছে এসেছিলেন। আমি অবশ্যই এ বিষয়ে গুরুত্ব সহকারে ব্যবস্থা নেবো।’

এ বিষয়ে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সোমা রানী বড়ুয়া বলেন, ‘আমি ক্লাস চলাকালীন সময়ে বিদ্যালয়ে গিয়ে এ বিষয়ে খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।’