গোল্ডেন বুটের লড়াইয়ে পাঁচ বাংলাদেশী

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:৩২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৩২:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৭, ২০১৮

গত বছর এই ভুটানের মাঠ থেকে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার গোল্ডন বুট জিতে নিয়েছিলেন বাংলাদেশের জাফর ইকবাল। সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ পুরুষ ফুটবলে তার গোল সংখ্যা ছিল পাঁচ। যদিও মাহাবুব হোসেন রক্সি ও অ্যান্ড্রু অর্ডের বাহিনী সেই আসরে চ্যাম্পিয়নশিপের বদলে রানার্সআপ হয়ে দেশে ফিরেছিল।

শনিবার সেই থিম্পুর চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে ফের গোল্ডন বুট জেতার অপেক্ষায় লাল সবুজদের পাঁচ মহিলা ফুটবলার। সে সাথে পুরো দেশ অপেক্ষ করছে অরেকটি শিারেপার জন্য। এই পাঁচ ফুটবলার হলেন তহুরা খাতুন, ছোট শামসুন্নাহার, মারিয়া মান্ডা, আনাই মগিনি ও সাজেদা খাতুন।

৪টি করে গোল দিয়ে শীর্ষে আছেন বাংলাদেশের তহুরা ও ছোট শামসুন্নাহার। অবশ্য তাদের পাশেই নাম ভারতের সিল্কি দেবীর। তার ও চার গোল। অবশ্য নেপালের বিপক্ষে আহত হয়ে স্ট্রেচারে চড়ে মাঠ ছাড়া এই ভারতীয় ফরোয়ার্ডের শনিবারের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা কম। শ্রীলংকার বিপেক্ষ হ্যাটট্রিক করেছিলেন তিনি। এরপর ভুটানের বিপক্ষে জয় সূচক এক মাত্র গোল।

ছোট শামসুন্নাহারের চার গোল পাকিস্তানের বিপক্ষে। তিনি অবশ্য বদলী হিসেবে মাঠে নেমেছেন প্রথম ম্যাচ ও সেমিতে। তবে নিয়মিত গোল পাচ্ছেন তহুরা খাতুন। প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করা তহুরা পরের দুই খেলায় একবার করে বল জালে পাঠান। মারিয়া, আনাই ও সাজেদার গোল তিনটি করে।

তিন গোল ভুটানের সোনম লাহমোরও। তার তিন গোল শ্রীলংকার বিপক্ষে। শুক্রবার নেপালে বিপক্ষে তৃতীয় স্থান নির্ধারনী ম্যাচে তার গোল সংখ্যা বৃদ্ধির সুযোগ। ২ গোল করা নেপালের রজনী থোকার ও চান্দ্রা ভান্ডারীরও সুযোগ আছে সর্বোচ্চ গোলদাতা হওয়ার।

বাংলাদেশের তহুরা ফাইনালে প্রথম একাদশে খেলবেন এটা নিশ্চিত। তবে ছোট শামসুন্নাহারের নামতে হবে বদলী হিসেবে। অবশ্য এই নিয়ে কোনো আফসোস নেই তার। এই মিডফিল্ডারের বক্তব্য, আগে নামলাম না পরে নামলাম এই নিয়ে কোনো দু:খ নেই। যখনই মাঠে নামবো তখনই সুযোগ পেলে গোল করবো।

তহুরা, ছোট শামসুন্নাহাররা আজ গোল না পেলে তাদের টপকে সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার জিততে কম পক্ষে দুই গোল লাগবে মারিয়া,
আনাই ও সাজেদার। সে সাথে আটকাতে হবে ভারতের সিল্কি দেবী ও দুই গোল করা সুনিতা মুন্ডাকে। একই সাথে অমঙ্গল কামনা
করতে হবে ভুটানের সোনম লাহমোর।