গোসলে গরম না ঠাণ্ডা পানি, কার জন্য কখন কোনটি?

প্রকাশিত: ৬:০৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০ | আপডেট: ৬:১০:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

ক্লান্তি বা পেশির ব্যথা কমাতে চাইলে অথবা ভালো ঘুমের জন্য গরম পানিতে গোসল বেশ উপকারী আবার শরীরচর্চার পরে পেশি ঠিক রাখতে ও জ্বলুনি কমাতে ঠাণ্ডা পানিতে গোসল উপকারী।

জীবনযাপন-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের পুষ্টিবিদ ও স্বাস্থ্যসম্পর্কিত প্রশিক্ষক টারা অ্যালেন বলেন, “গরম ও ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করার আলাদা আলাদা সুবিধা রয়েছে। তাই নিজের প্রয়োজন বুঝে ঠাণ্ডা বা গরম পানি গোসলের জন্য বাছাই করতে পারেন।”

· আয়ুর্বেদে বলা হয়েছে গোসলের সময় শরীরে গরম পানি ব্যবহার করলেও মাথায় ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করতে হবে। কারণ গরম পানি আমাদের চুল ও চোখের জন্য ক্ষতিকর।

· শরীরের ধরনের ওপর নির্ভর করে আপনি গোসলে ঠাণ্ডা না গরম পানি ব্যবহার করবেন। যেমন আপনি যদি সুস্থ আর সুঠাম দেহের হন তবে ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করুন। না হলে গরম পানিই ঠিক আছে।

· লিভারে সমস্যা, বদহজম, হাত-পা, শরীর জ্বালা করলে ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করুন

· আর এলার্জি, কাশি, ঠাণ্ডা, পায়ের ব্যথা, সাইনাস, বাত এধরনের রোগ থাকলে গরম পানিতে গোসল করুন

· শিশু ও বৃদ্ধদের জন্য গরম পানি ভালো

· ছাত্র ছাত্রীরা যারা পড়াশোনায় বেশি সময় ব্যস্ত থাকেন এবং পর্যাপ্ত ঘুমাতে পারেন না তারা ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করলেই বেশি উপকার পাবেন

· নিয়মিত ব্যায়াম করার পর গরম পানিতে গোসল করতে পারেন

· নিয়মিত শরীরে তেল ম্যাসেজ করে আধা ঘণ্টা পর গোসল করার অভ্যেস করুন

· ভালো ত্বক এবং স্বাস্থ্যের জন্য গোসলের পানিতে কয়েকটি নিম পাতা দিয়ে রাখুন

· মনে রাখবেন, গোসলে ঠাণ্ডা পানির ব্যবহারে পুরনো কিছু ব্যাথা কমে যেতে পারে, চুলকানি দূর হয়, দেহের অবাঞ্চিত উত্তেজনা প্রশমন হয় পাশাপাশি স্নায়ুর দুর্বলতা দূর করতে সাহায্য করে। ‌