গৌরীপুরে ইসলামী দুটি সংগঠনের একই স্থানে সমাবেশের ঘোষণা

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:০৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ | আপডেট: ৬:০৫:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১

শফিকুল ইসলাম মিন্টু, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা: ময়মনসিংহের গৌরীপুরে ইসলামী সংগঠন ইত্তেফাকুল উলামা এবং আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত ও হক্বের দাওয়াত সিদ্দিকীয়া দরবার শরীফের ভক্তবৃন্দ একই স্থানে সমাবেশ করার ঘোষণা দেয়ায় প্রসাশনের হস্তক্ষপে একপক্ষের সমাবেশ স্থগিত করা হয়। অন্যপক্ষ জায়গা বদল করে তাতকুড়া সমাবেশ করেছ।

জানা যায়, বগুড়ার মাওলানা আলহাজ¦ ড. মুফতী মুহাম্মদ আশরাফ আলীমুল্লহ সিদ্দীকিকে ইত্তেফাকুল উলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী গৌরীপুর উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ গৌরীপুরে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেন। এই নিয়ে গৌরীপুরে উত্তেজনা বিরাজ করছে। অবাঞ্চিত ঘোষণার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) গৌরীপুরে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত ও হক্বের দাওয়াত সিদ্দিকীয়া দরবার শরীফের ভক্তবৃন্দ ঐতিহাসিক শহীদ হারুণ পার্কে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দেয়। এর পরপরই ইত্তেফাকুল উলামা বৃহত্তর মোমেনশাহী গৌরীপুর শাখা একই স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশের ঘোষণা দিয়ে মাইকে প্রচার-প্রচারণা শুরু করে। এ নিয়ে পুরো এলাকাজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। গৌরীপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোফাজ্জল হোসেন খান, ইউএনও হাসান মারুফ ও গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোহাম্মদ কামাল হোসেন উভয়পক্ষের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলে সমঝোতার চেষ্টা করেন। দু’পক্ষকেই সভা-সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে নিষেধাজ্ঞা দেন। এর প্রেক্ষিতে ইত্তেফাকুল উলামা বৃৃত্তর মোমেনশাহী গৌরীপুর শাখা রাতে মাইকিং করে ‘অনিবার্য্য’ কারণ দেখিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ স্থগিত ঘোষণা করে।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত ও হক্বের দাওয়াত সিদ্দিকীয়া দরবার শরীফের নেতৃবৃন্দ প্রতিবাদ সমাবেশে অনঢ় থাকেন। গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোহাম্মদ কামাল হোসেনের নেতৃত্বে সকাল থেকে শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও বিশেষ টহলের মধ্যে দিয়ে কাউকে শহীদ হারুণ পার্কে সমাবেশ করতে দেয়নি।

শহীদ হারুণ পার্কে প্রতিবাদ সমাবেশ করতে না পেওে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত ও হক্বের দাওয়াত সিদ্দিকীয়া দরবার শরীফের উদ্যোগে তাঁতকুড়া বাজার জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করে। সভায় ড. আলীমুল্লাহ সিদ্দিকীকে অবাঞ্চিত ঘোষণা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তরা বলেন, গৌরীপুরে ধর্মীয় সভা করা সবার অধিকার। অলি আওলিয়াদের নামে কটুত্তি, মিথ্যা তথ্য দেয়া বন্ধ করারও আহ্বান জানানো হয়। ১মার্চ গৌরীপুরের গাজীপুর বাসস্ট্যান্ডে ড. মুফতী মুহাম্মদ আশরাফ আলীমুল্লহ সিদ্দীকি’র ওয়াজ মাহফিলের ঘোষণাও দেয়া হয়।

সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত ময়মনসিংহ শাখার মাওলানা শামসুল হক কিছমতি হুজুর, মাওলানা রাকিবুল হাসান, মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, ঈশ^রগঞ্জ রসুলপুর দরবার শরীফের খলিফা অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা আফাজ উদ্দিন, মুফতি মাওলানা জাহিদুল ইসলাম, সিদ্দিকীয়া দরবার শরীফের খলিফা মাওলানা সামছুল হুদা, মাওলানা রাসেল আহমেদ, গোল্লাজয়পুর দাখিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা রেজাউল করিম, ছালামাবাদ দরবার শরীফের খলিফা মাওলানা শরীয়ত উল্লাহ খোকন, হাফেজ মাওলানা খলিলুর রহমান, মাওলানা আব্দুর রহমান, মাওলানা রফিকুল ইসলাম, হাফেজ মাওলানা রবিকুল ইসলাম, মাওলানা জাহিদ হাসান, মাওলানা শামীম আহমেদ, রামগোপালপুর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার মো. সাহেদ আলী, মাওলানা মো. এমদাদুল হক, মাওলানা মোহাম্মদ আলী, রসুলপুর উত্তর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. আমান উল্লাহ মাস্টার, সতিষা খালপাড় জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মো. হাবিবুর রহমান, মাওলানা আল আমিন, নান্দাইল গারুয়া দরবার শরীফের খলিফা মাওলানা নজরুল ইসলাম প্রমুখ।