গ্রিজম্যানের ফর্মহীনতার পেছনে মেসির দায় দেখেন ওয়েঙ্গার

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:০৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০ | আপডেট: ৬:০৫:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০

অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদে থাকতে ছিলেন লা লিগার অন্যতম সেরা ফুটবলার। সেই গ্রিজম্যানই যেন বার্সেলোনায় এসে একই লিগে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন। কাতালান ক্লাবটির জার্সিতে লা লিগায় ৩৫ ম্যাচ খেলে মাত্র ৯ গোল করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড।

তবে ফরাসি ফরোয়ার্ডের এই ফর্মহীনতার পেছনে বার্সা অধিনায়ক লিওনেল মেসির দায় দেখছেন আর্সেনালের কিংবদন্তি কোচ আর্সেন ওয়েঙ্গার।

গত বছর ক্লাব রেকর্ড ১২০ মিলিয়ন ইউরো ট্রান্সফার ফি’র বিনিময়ে অ্যাতলেটিকো ছেড়ে ক্যাম্প ন্যুয়ে পাড়ি জমান গ্রিজম্যান। তাকে নিয়ে কাতালান জায়ান্টদের প্রত্যাশার পারদ বেশ উঁচুতেই ছিল। কিন্তু মেসির পাশে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারেননি তিনি।

মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে ফেরেন্সভারোসকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বার্সা। ম্যাচটিতে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে বেঞ্চে ছিলেন গ্রিজম্যান। কিন্তু তাকে ব্যবহার করেননি কোচ রোনাল্ড কোম্যান। এর আগে লা লিগার চলতি মৌসুমে চার ম্যাচে গোলশূন্য ছিলেন গ্রিজম্যান। এই চার ম্যাচে লক্ষ্যে মাত্র একবার শট ও মাত্র একটি অ্যাসিস্ট এসেছে তার পা থেকে।

অন্যদিকে চলতি মৌসুমে এখন পর্যন্ত মাত্র এক গোল করেছেন মেসি। তবে ছয়বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী লক্ষ্যে ৭টি শট নেওয়ার পাশাপাশি সতীর্থদের জন্য ৬ বার গোলের সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন।

গ্রিজম্যানের ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে মেসির ঘাড়েই দায় চাপালেন ওয়েঙ্গার। স্বদেশী গ্রিজম্যানের প্রিয় পজিশন অর্থাৎ সেন্ট্রাল অ্যাটাকিং পজিশনে যে খেলেন মেসি, সেটাই মনে করিয়ে দিলেন এই ফরাসি কিংবদন্তি। ‘বিইনস্পোর্টস’কে তিনি বলেন, ‘লম্বা সময়ের জন্য নিজের পছন্দের পজিশনে না খেলা তার (গ্রিজম্যানের) জন্য কঠিন। ‘

বার্সায় গ্রিজম্যানের সমস্যাগুলোর দিকে আলোকপাত করে তিনি আরও বলেন, ‘শুরুতে ছেলেটা (নতুন পজিশন) মানিয়ে নিতে চেয়েছিল, কিন্তু দীর্ঘ সময় সে যদি তার প্রয়োজন মেটাতে না পারে এবং তার পজিশন যদি তাকে সেরা কোয়ালিটির বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে না পারে, তাহলে সে নিরুৎসাহিত হবে। ‘

‘এখন সে এমন এক খেলোয়াড় যার সেন্টারে খেলার কথা কারণ তার কাজের পরিধি দারুণ, তার পাসিং অনবদ্য। সে শেষ পাসে ভয়ানক হয়ে উঠতে পারে এবং গোল করতে পারে, কিন্তু একটা ঝামেলা হয়ে গেছে আর তা হলো সে মেসির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে খেলে। ‘

গতবার বার্সার জার্সিতে নিজের প্রথম মৌসুমে, গ্রিজম্যান ৯ গোল ও ৪টি অ্যাসিস্ট করেছিলেন। এছাড়া ৩৫ ম্যাচে ৩৩টি গোলের সুযোগ তৈরি করেছিলেন তিনি। গতবার সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে মাত্র ১৫ গোল করেছিলেন তিনি, যার প্রভাব পড়েছিল বার্সার পারফরম্যান্সেও।

গত মৌসুমে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের কাছে লা লিগার শিরোপা হারানোর পর চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হয়ে বিদায় নিতে হয় কাতালান জায়ান্টদের।

এর আগে ২০১৪ এবং ২০১৯ সালের মধ্যে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের জার্সিতে ২৫৭ ম্যাচে ১৩৩ গোল করেছিলেন ২৯ বছর বয়সী গ্রিজম্যান। এর ছিটেফোঁটাও তিনি বার্সার জার্সিতে করতে পারেননি, যা তাকে ক্রমেই সাইডলাইনে ঠেলে দিচ্ছে।