চবির শাটল ট্রেনে পা হারানো রবিউলকে পঙ্গুতে ভর্তি

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪৬ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৪৬:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৮

চবির শাটল ট্রেনে পা হারানো সমাজতত্ত্ব বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী রবিউল আলমকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। কয়েক দফা অস্ত্রোপচার করেও অবস্থার উন্নতি হয়নি রবিউল আলমের। দিনদিন শারীরিক অবস্থা আরও অবনতি হচ্ছে ।

রবিবার বিকেল ৩টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (চমেক) থেকে রবিউলকে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়া হয়।

চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী এবং রবিউলের পরিবারের উপস্থিতিতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

অসুস্থ রবিউল বলেন, “ভাই দু’ পায়ে যে আঘাত, যে ব্যথা তা কীভাবে বলে বোঝাব? এই যে বসে আসি, এভাবে কতোক্ষণ বসে থাকা যায় বলেন, নড়াচড়া তো করতেই হয়, তাই না? কিন্তু আমি তো তা পারছি না। একটু নড়লেই ব্যথা লাগছে। সহ্য করার মতো নয় রে ভাই!’’

এ ব্যাপারে কর্তব্যরত চিকিৎসক অর্থপেডিক্স সার্জন মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেন, রোগীর কন্ডিশন খারাপ ছিল। আমাদের মেডিকেল কলেজের পরিসরে, যতটুকু সামর্থ আছে আমরা চেষ্টা করেছি।

কিন্তু রোগীর অভিভাবকরা চাচ্ছেন উন্নত চিকিৎসা। এটা তাদের ন্যায্য অধিকার। আমরাও চাই ছেলেটা ভালো হোক। তাই তাকে আরও বেশি উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী বলেন, ‘বিশেষায়িত চিকিৎসার জন্য রবিউলকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সহযোগিতায় তাকে সেখানে পাঠানো হয়েছে।’

তার ভাই রফিকুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা দিয়ে আসছে সেজন্য আমার পরিবার কৃতজ্ঞ। ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমাদের জানানো হয়েছে। পরে সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নেই।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সমাজতত্ব বিভাগের রবিউল আলম গত ৮ আগস্ট নগরীর ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশনে রেললাইন পার হওয়ার সময় ট্রেন কাটা পড়েন। ঘটনায় তার শরীর থেকে দু পা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তার বাড়ি কক্সবাজারের টেকনাফে। তার পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো নয়।