চালককে পিটিয়ে অটোরিকশা ছিনতাই করল আ’লীগ নেতা

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:০০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ১:০০:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮

বগুড়ার ধুনটে চালক ও তার স্ত্রীকে পিটিয়ে নগদ টাকা, স্বর্ণের গয়না ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে গোলজার হোসেন নামে এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় উপজেলার বথুয়াবাড়ি গ্রামের অটোরিকশাচালক বাচ্চু সরকার থানায় ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য ও বালু ব্যবসায়ী গোলজার হোসেনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে জানা গেছে, আওয়ামী লীগ সদস্য গোলজার হোসেনের ছেলে পলাশ প্রায় তিন মাস আগে বাড়ির কাছে একটি দোকানের পাশে তার মোটরসাইকেল রাখেন। মধ্যরাতে কে বা কারা আগুন দিয়ে সেটি পুড়িয়ে দেয়।

গোলজার হোসেন পূর্বশত্রুতার জের ধরে প্রতিবেশী খোরশেদ আলম সরকারের ছেলে অটোরিকশাচালক বাচ্চু সরকার ও তার ছেলে রাফির বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। পরবর্তীতে গ্রাম্য সালিশে মাতব্বররা বাচ্চু মিয়াকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

গত ৩০ আগস্ট মাতব্বরদের হাতে জরিমানার টাকা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্ত্রী অসুস্থ ও টাকা না থাকায় বাচ্চু সরকার নির্ধারিত দিনে জরিমানা পরিশোধ করতে পারেননি। রোববার ভোর ৫টার দিকে তিনি অটোরিকশায় স্ত্রী লিলি বেগমকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য বগুড়া শহরে যাচ্ছিলেন।

বথুয়াবাড়ি সেতু এলাকায় পৌঁছালে গোলজার হোসেন ও তার লোকজন পথরোধ করে বাচ্চু সরকার ও তার অসুস্থ স্ত্রীকে মারধর করে। তাদের কাছে থাকা ৩৫ হাজার টাকা, সোনার গয়না ও অটোরিকশা ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারা।

অটোরিকশাচালক বাচ্চু সরকার জানান, তিনি গোলজার হোসেনের মোটরসাইকেল পোড়ানোর সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। এরপরও মাতব্বরদের নির্দেশে জরিমানার টাকা দিতে রাজি হয়েছিলেন। কিন্তু স্ত্রীর অসুস্থতার কারণে সময়মতো টাকা দিতে না পারায় তাকে ও স্ত্রীকে পিটিয়ে নগদ টাকা, গয়না ও অটোরিকশা ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত গোলজার হোসেন বলেন, তার মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় কয়েকবার সালিশ বৈঠক বসে। পরে বাচ্চু সরকার ৪০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে চেয়েছিল। কিন্তু টাকা দিতে না পারায় নিজেই তার অটোরিকশা আমার বাড়িতে রেখে গেছে। তাদের মারপিট বা টাকা-গয়না ছিনিয়ে নেয়া হয়নি।

ধুনট থানার ওসি খান মো. এরফান জানান, বাচ্চু সরকারের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।