চেম্বারে ডেকে যৌন হয়রানি করেন রাবি শিক্ষক, অবশেষে মিললো সতত্যা

মুজাহিদ হোসেন মুজাহিদ হোসেন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 5:38 PM, July 21, 2019 | আপডেট: 5:38:PM, July 21, 2019

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইআর) শিক্ষকের বিরুদ্ধে আনীত দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে অনুসন্ধান কমিটি। রবিবার আইইআরে অনুষ্ঠিত ইনস্টিটিউট সভায় অনুসন্ধান কমিটি এই রিপোর্ট জমা দেয়। আইইআরের পরিচালক অধ্যাপক চৌধুরী মো. আবুল হাসান এসব তথ্য জানান।

তিনি জানান, সহকারী অধ্যাপক বিষ্ণুকুমার অধিকারীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ তদন্তে একটি সত্য অনুসন্ধান কমিটি করা হয়। আজকের সভায় সেই কমিটির রিপোর্ট জমা দেয়া হয়। তাতে ওই শিক্ষকের বিরদ্ধে আনীত অভিযোগ সত্য মনে হয়েছে। রিপোর্টের সারসংক্ষেপ সোমবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে জমা দেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ ও ২৭ জুন আইইআরের দুই ছাত্রী যৌন হয়রানির লিখিত অভিযোগ দেন। তাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিষ্ণুকুমার অধিকারীকে শিক্ষাকার্যক্রম থেকে সাময়িক অব্যহতি দেয়া হয়।

অভিযোগ তদন্তে পরিচালককে প্রধান করে তিন সদস্যের তথ্য অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হয়। পরে গত ২৮ জুন শুক্রবার অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিতে অভিযোগকারী ছাত্রীদের চাপ দেয়া হচ্ছে এই মর্মে নিরাপত্তা চেয়ে থানায় দুটি জিডি করা হয়।

এর আগেও সান্ধ্যকোর্সের কয়েক ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে গত বছর অভিযুক্ত শিক্ষককে ওই ব্যাচের কার্যক্রম থেকে সরিয়ে নেয়া হয় বলে আইইআর সূত্রে জানা যায়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক জানান, ২০১২ সালে ‘নারী ঘটিত’ কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মীর আব্দুল কাইয়ুম ইন্টারন্যাশনাল ডরমেটরি থেকে তাকে বের করে দেয়া হয়।

এছাড়াও বিষ্ণুকুমার অধিকারীর বিরুদ্ধে পছন্দের শিক্ষার্থীকে নম্বর বাড়িয়ে অপছন্দের শিক্ষার্থীদের নম্বর কমিয়ে দেয়া, চেম্বারে ডেকে হয়রানি, ফেইসবুকে বিভিন্ন ব্যাচের গ্রুপের কথপোকথনের স্ক্রিণশট নিয়ে হয়রানিরও অভিযোগ রয়েছে বলে শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন।