ছাগল গ্রেফতার করে পুলিশের বাহাদুরি

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯ | আপডেট: ১:৩৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

‘ছাগলের পেটে ছিল না জানি কি ফন্দি’ সুকুমার রায় যথার্থই বলেছিলেন। এই ছাগলরা মোটেও ব্যাকরণ মানে না। সহবতেরও ধার ধারে না। ওই যে কথায় বলে না, ‘ছাগলে কি না খায়!’ এই পেটপুজো করতে গিয়েই শেষমেশ ফাঁদে পড়েছে দু’টো ছাগল। অন্যের বাগান থেকে গাছ চুরি করে খেতে গিয়ে হাতেনাতে পাকড়াও হয়েছে। পরিণতি? হাজতবাস।

ছাগলকেও কি গ্রেফতার করা হবে? ওপরের কথাগুলো পড়ে হয়তো আপনার মনে সেই প্রশ্ন জাগতেই পারে। আপনার প্রশ্নের উত্তর ভারতের তেলেঙ্গানার পুলিশের কাছে জানতে চাইলে উত্তর আসবে ‘হ্যাঁ’।

অদ্ভুত সেই কাণ্ডটিই এবার দেখা গেছে ভারতের তেলেঙ্গানায়। রাজ্যের একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বনায়ন কর্মসূচির আওতায় সাড়ে নয়শো বৃক্ষরোপন করেছিল। বৃক্ষরোপনের কয়েক দিনের মাথায় দেখা যায়, দুই ছাগল মিলে প্রায় আড়াইশো চারাগাছ খেয়ে সাবাড় করে দিয়েছে।

মহাসর্বনাশ!! খবর পেয়ে পুলিশ এলো লাঠি-বন্দুক হাতে। ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা বীরদর্পে ছাগল দুটোকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করলো। এমনকি ছাগলের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগও দায়ের করা হলো। এর পর অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ যখন ছাগল দুটিকে গ্রেফতার দেখায় ঠিক তখনই রাজ্যজুড়ে হাস্যরসের রোল পড়ে।

মানুষ অপরাধ করলে তাকে গ্রেফতার করা হবেই, কিন্তু তাই বলে ছাগলকেও! পুলিশের এই বাহাদুরি নিয়ে শুধু তেলেঙ্গানায় নয়, গোটা ভারতেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক রঙ্গরস হচ্ছে। চলছে হাসি-ঠাট্টাও।