ছাত্রলীগের অনাবাসিক শিক্ষার্থীকে বের করে দিল রাবির হল প্রধ্যাক্ষ

মুজাহিদ হোসেন মুজাহিদ হোসেন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৯ | আপডেট: ১২:৫৮:পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৯

রাবি প্রতিনিধি:রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) মতিহার হল থেকে ছাত্রলীগের এক অনাবাসিক শিক্ষার্থীকে বের করে দিয়েছে হল প্রাধ্যক্ষ। শুক্রবার বিকেল ৪টায় হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলী আসগর অনাবাসিক ওই শিক্ষার্থীকে হল ছেড়ে চলে যেতে বলেন। এ ঘটনায় বিকাল থেকে ছাত্রলীগ হলে অবস্থান করে একপর্যায়ে সন্ধ্যার দিকে হলের ফটক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে।

অনাবাসিক শিক্ষার্থীর নাম জনি মিঞা। তিনি মতিহার হলের ১২০ নম্বর কক্ষে অবস্থান করছিলেন। হলের গার্ড ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হলের ১২০ নম্বর কক্ষে জনি মিঞা নামের এক অনাবাসিক শিক্ষার্থীকে হলে তোলেন ছাত্রলীগ কর্মী মোহন কুমার মন্ডল। তিনি ২৩৫ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী। এই তথ্য পেয়ে শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে ওই কক্ষে হল প্রশাসন অভিযান পরিচালনা করে। এসময় জনির জিনিষপত্র নিয়ে বের হয়ে যেতে বলেন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মুহ. আলী আসগর। পরে সন্ধ্যা ৬টার দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মতিহার হলে অবস্থান নেয়। এসময় হল ফটক অবরোধ করে তারা হল প্রাধ্যক্ষের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে। পরে প্রক্টরিয়াল বডি এলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

ওই শিক্ষার্থী বলেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর মাধ্যমে ছাত্রলীগ কর্মী মোহন ভাই আমাকে এখানে উঠিয়ে দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে মোহন কুমার মÐলকে ফোন করলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে ফোন কেটে দেন। জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, আমরা ছাত্রলীগের এক ছেলেকে তুলে দিয়েছি। বিষয়টি নিয়ে আমরা প্রাধ্যক্ষ স্যার ও প্রক্টর স্যারের সঙ্গে কথা বলছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। আমি তাদের বলেছি যে প্রাধ্যক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি সমাধান করতে। মতিহার হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক আলী আসগর বলেন, তার আবাসিকতা না থাকায় বের করে দেয়া হয়েছে। আবাসিকতা না থাকলে কোনো শিক্ষার্থী হলে অবস্থান করতে পারবে না।