জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হজ করেন এই আদমাদি মুসলিম (ভিডিও)

প্রকাশিত: ১:৪৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৮ | আপডেট: ১:৪৭:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৮

মনে করা হয়, প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক মুসলমানের জীবনে একবার হলেও হজ করা উচিত। ইসলামের পাঁচটি স্তম্ভের একটি হজ। এ সময় মক্কায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে লাখো মুসল্লি হজ করতে যায়। কিন্তু একমাত্র আহমাদিরা হজ করতে পারছেন। তাদের হজের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছি সৌদি আরব। কারণ, আদমাদিরা মুসলমান হিসেবে স্বীকৃতি পায়নি। তাদের ধর্মীয় বিশ্বাস অন্য মুসলমানদের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।

কিন্তু জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হজ করেছেন এই মানুষটি। আহমাদিরা হজ করতে গেলে গ্রেপ্তার হতে হবে। কিন্তু একজন জীবনের ঝুঁকি নিয়েছেন। গত বছর গোপনে হজ সেরেছেন তিনি। তাদের সবার সৌদিতে প্রবেশ নিষেধ। আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্যেই হজ করছেন আপনি, জানান তিনি।

নাম-পরিচয় গোপন রেখে তিনি বলেন, আল্লাহ জানেন আমি মুসলমান। কাজেই তিনিই আমাকে সহায়তা করবেন।

ইসলামের এমন একটি অংশ আহমাদিয়ারা, যারা বিশ্বাস করেন না যে হযরত মোহাম্মদ (সা.) শেষ নবী। তাদের বিশ্বাস ১৮৩৫ সালে ভারতে জন্ম নেয়া মির্জা গোলাম আহমাদ নবীর আদর্শ বাস্তবায়নের জন্যে পৃথিবীতে এসেছেন। এ কারণেই তাদের এই অংশটিকে মুসলমান বলে স্বীকৃতি দেয় না অন্যরা।

বিশেষ করে ১৯৭৪ সালে পাকিস্তানে আদমাদিদের ধর্মপালনে নিয়ন্ত্রণ এনে আইন পাস করা হয়। সৌদিতেও তাদের প্রবেশ নিষেধ। তবে যাদের দ্বৈত নাগরিকত্ব রয়েছে তারা আইনের ফাঁক-ফোকরে সৌদিতে যেতে পারেন। অনেক সময় ধরে তারা তাদের ধর্মীয় পরিচয়টা গোপন করে আসছেন। বেশ কিছু জাতি এবং দল তাদের অমুসলিম বলে ঘোষণা দিয়েছে।

ব্রিটেনের ম্যানচেস্টারের দারুল আমান মসজিদের ইমাম মোহাম্মাদ আহমেদ খুরশিদ বলেন, বিষয়টা বেশ জটিল। এ কারণে আহমাদিদের হজ পালন করা বেশ কঠিন। এ কারণেই ভ্রমণের সময় তারা নিজের পরিচয়টা গোপন রাখেন। তাছাড়া এমনিতেও মানুষ জিজ্ঞাসা করে না যে আপনি কোন ধর্মের কোন শাখার মানুষ। আমরা যে দেশে থাকি তার প্রতি সম্মানবোধ রয়েছে। এই মসজিদের অনেকে হজ করতে গেছেন। নিজেরাই গেছেন। আমি নিজে কখনো হজে যাইনি, কিন্তু যেতে ইচ্ছুক। আমরা চাই না, এ বিষয় নিয়ে কোনো অস্বস্তিকর অবস্থার সৃষ্টি হোক।

সূত্র: বিবিসি