‘জোটবন্ধ নির্বাচন বিএনপির ওপর নির্ভর করছে’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৫৪:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৮
সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ফাইল ছবি

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, নির্বাচন কালীন মিনি কেবিনেটে জাতীয় পার্টি থাকবে। তবে কারা থাকবে তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বিএনপির বিচ্ছিন ভিন্ন অবস্থা। তারা নির্বাচন আসতেও পারে, নাও আসতে পারে। তবে আমরা নির্বাচন করব। আমরা নির্বাচন মূখী দল।

৩০০ আসনে নির্বাচন করব। যদি বিএনপি নির্বাচনে আসে তখন জোটবন্ধ নির্বাচন করব। ঈদ-উল-আযহা উদযাপন করতে আজ শনিবার রংপুরে পাঁচ দিনের সফরে এসে সার্কিট হাউসে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, রংপুর-৩ আসন থেকে আজ আমার নির্বাচনী প্রচারণা শুরু হলো। আমার মাতৃভূমি রংপুর থেকে জন্মভূমি থেকে নির্বাচনী প্রচারণার জন্য দলের সবাইকে সঙ্গে এনেছি। আমার সঙ্গে মহাসচিব, আমার ছোট ভাই সহশীর্ষ নেতারা রয়েছেন।

লাঙ্গলের দুর্গ ধরে রাখতে এরশাদ বলেন, এখানকার ২৩টি আসন এককালে আমাদের ছিলো। এর মধ্যে আমার বোন শেখ হাসিনাকে রংপুরের পীরগঞ্জ আসনটি ছেড়ে দিয়েছিলাম। এবার নির্বাচন হবে। আমরা রংপুরের সবকটি আসন চাই। রংপুরের মানুষ আমাদেরকে ভোট দিবে। আমরা সব কটি আসনে জয়ী হব। কে কি আশা করল, কে কি দাবি করল সেটা আমাদের যায় আসেনা।

জোটবন্ধ নির্বাচন প্রসঙ্গে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বলেন, জোটবন্ধ নির্বাচন বিএনপির ওপর নির্ভর করছে। বিএনপি নির্বাচনে আসলে আমরা জোটবন্ধ নির্বাচন করব। আর না আসলে একক ভাবে আমরা নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত আছি। আমাদের ৩০০ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত আছে।

তিনি আরো বলেন, নির্বাচন কালীন মিনি কেবিনেটে জাতীয় পার্টি থাকবে। তবে কারা থাকবে তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। বিএনপির বিচ্ছিন ভিন্ন অবস্থা। তারা নির্বাচন আসতেও পারে, নাও আসতে পারে। তবে আমরা নির্বাচন করব। আমরা নির্বাচনমূখী দল। ৩০০ আসনে নির্বাচন করব। যদি বিএনপি নির্বাচনে আসে তখন জোটবন্ধ নির্বাচনকরব।

ছাত্রদের আন্দোলনে গ্রেফতারদের প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, এ বিষয়ে আমার কোন মন্তব্য নেই। তবে আজও ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে। আমি আটক ছেলেদের মুক্তি চেয়েছিলাম। এখনও চাই। কিন্তু সরকার ওদের মুক্তি দেয়নি। আসলে সরকারের কি ইচ্ছা তা ঠিক জানিনা।

ড. কামাল হোসেনের নতুন প্লাটফর্ম সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ এই দূত বলেন। আমি কারো বদনাম করতে চাইনা। প্লাটফর্ম অনেকেই করছে। এখন শক্তিশালী প্লাটফর্ম তিনটি রয়েছে। বিএনপির অবস্থা এখন ভালো নয়। সে জন্য বলতে হবে শক্তিশালী প্লাটফর্ম একটি আওয়ামীলীগ, দ্বিতীয়টি জাতীয়পার্টি।

এ সময় এরশাদের সঙ্গে দলের মহা সচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়া উদ্দিন বাবলু, অবসর প্রাপ্ত মেজর খালেদ আখতার, রংপুর মহানগর জাপার সাধারণ সম্পাদক এসএম ইয়াছির, জেলা জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।

পরে তিনি রংপুর সদরের আটটি স্পটে প্রায় ১০ হাজার দুস্থ্যদের মাঝে মেজবান অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে লাঙ্গল প্রতীকে তাকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানান। এর আগে জাপা চেয়ারম্যান হেলিকপ্টার যোগে রংপুর স্টেডিয়ামে নামেন।