টাইব্রেকার নাটকীয়তার পর ফাইনালে মেসিবিহীন বার্সেলোনা

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:১৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২১ | আপডেট: ৬:১৯:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২১

গ্রানাডার সঙ্গে ম্যাচে চোট পেয়ে বাইরে গিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। কাল স্প্যানিশ সুপার কাপের সেমিতে তাকে নামানোর ঝুঁকি নেননি কোচ রোনাল্ড কোমান। মেসিকে ছাড়াই জিতেছে বার্সা, তবে সেজন্য যেতে হয়েছে টাইব্রেকার পর্যন্ত। সেখানেও নানা নাটকীয়তার পর গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেনের নৈপূণ্যে জয় পেয়েছে বার্সেলোনা।

সোসিয়েদাদকে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারিয়েই ফাইনালে গেছে বার্সা। রোববারের সেই ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ হতে পারে রিয়াল মাদ্রিদ বা অ্যাথলেটিক বিলবাও।

টাইব্রেকারে প্রথমে শট নেয় রিয়াল সোসিয়েদাদ। নিজের পাঁচটি শট শেষে তারা গোল করতে পারে মাত্র দুটি ২টি। প্রথম তিনটির মাঝে দুটিই গোলরক্ষক টের স্টেগেন ফিরিয়ে দেন। বাকিটি বারে লেগে বাইরে দিয়ে চলে যায়।

অন্যদিকে বার্সেলোনাও প্রথম চার শট থেকে মাত্র ২টি গোল আদায় করতে পারে। ফলে ম্যাচ নির্ধারণীর জন্য শেষ শটটি নেওয়ার ভার পড়ে রিকি পুইগের কাঁধে। তবে স্নায়ু চাপের মুখে দাঁড়িয়ে কোনো ভুল করেননি পুইগ। সঠিক ঠিকানা খুঁজে নিয়ে দলকে জিতে ফাইনালে পৌঁছে দেন তিনি। তবে জয়ের নায়ক বার্সেলোনার গোলরক্ষক টের স্টেগেন।

এর আগে সেমিফাইনালে এ ম্যাচে নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময় শেষে ১-১ গোলে সমতায় থাকে দুই দল। ফলে ফল নির্ধারণে টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচ। প্রথমার্ধে (৩৯তম মিনিট) ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের গোলে বার্সা এগিয়ে গেলেও দ্বিতীয়ার্ধে মিকেল ওইয়ারসাবাল গোল করে সমতা টানেন।

কোর্দোবায় বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে সেমিফাইনালের এ ম্যাচে একাদশে ছিলেন না লিওনেল মেসি। ফলে ম্যাচের শুরু থেকেই বার্সেলোনার আক্রমণভাগে মেসির শূন্যতা ফুটে ওঠে। বল দখলে আধিপত্য দেখালেও গোল আদায়ে সুবিধা করতে পারছিল না তারা।

ধীরে ধীরে গুছিয়ে উঠে প্রতিপক্ষের ওপর চাপ বাড়িয়ে ৩৯তম মিনিটে এগিয়ে যায় লিগে টানা আট ম্যাচ অপরাজিত থাকা দল বার্সেলোনা। বক্সের মুখে গ্রিজমানের বাড়ানো বল লাফিয়ে হেড করে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ডি ইয়ং।

১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে থেকে ফিরলেও দ্বিতীয়ার্ধের ষষ্ঠ মিনিটে ওইয়ারসাবালের সফল স্পট কিকে সমতায় ফেরে সোসিয়েদাদ। ডি-বক্সে ডি ইয়ংয়ের কনুইয়ে বল লাগলে পেনাল্টিটি পায় দলটি। এরপর ১-১ গোলের সমতায় নির্ধারিত ৯০ মিনিট শেষ হওয়ায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

অতিরিক্ত সময়েও টের স্টেগেনের নৈপুণ্যে বেঁচে যায় বার্সেলোনা। ইয়োসেবা জালদুয়ার ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া বুলেট গতির শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান তিনি। এছাড়া আক্রমণ-প্রতি আক্রমণে দু’দলই সুযোগ তৈরি করলেও গোল আদায় করতে না পারায় টাইব্রেকারে গড়ায় ম্যাচ।