টাঙ্গাইলে পরকীয়ার জেরে ইউপি সদস্যকে গণধোলাই

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৯ | আপডেট: ৭:১৯:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৯
ছবি : প্রতীকী

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সহদেবপুর ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলী পরকীয়ার জের ধরে বুধবার (২০ নভেম্বর) দিবাগত রাতে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন। তিনি ওই ইউনিয়নের আকুয়া গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে এবং সহদেবপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ড সদস্য।

এলাকাবাসী জানান, আকুয়া গ্রামের জনৈক মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রীর(৪০) সাথে দীর্ঘদিন ধরে ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলীর পরকীয়া চলছিল। জানাজানি হলে প্রবাসীর ভাইয়েরা বুধবার রাতে বৈঠকে বসে বিষয়টি সমাজিকভাবে সমাধানের চেষ্টা করে।

খবর পেয়ে ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলী লোহার রড নিয়ে ওই বৈঠকে হামলা চালায়। হামলায় এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়। পরে বৈঠকের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলীকে গণধোলাই দেয়। ইউপি সদস্য ইয়াকুব আলী বর্তমানে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ইউপি সদস্যের প্রতিবেশি আলাউদ্দিন, মিন্টু মিয়া, নজরুল, তুফাল সহ অনেকেই জানান, ইয়াকুব আলীর দুই স্ত্রী বর্তমান থাকা অবস্থায়ও নানা অনৈতিক কর্মকান্ড করায় ক্ষুব্ধ তারা। নৈতিক স্খলনের কারণে ইয়াকুব আলীকে ইউপি সদস্যের পদ থেকে অপসারণের দাবি জানান তারা।

ইউপি সদস্যের গণধোলাইয়ের সত্যতা নিশ্চিত করে সহদেবপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান বালা জানান, পরকীয়ার বিষয়টি অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। তবে এর ক্ষোভে ইউপি সদস্যকে গণধোলাই না দিয়ে পুলিশে দেয়া উচিত ছিল।