ট্রাম্পের পথে হাঁটছে ফ্রান্স

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:২৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১ | আপডেট: ৫:২৫:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জো বাইডেন যুগের সূচনা হওয়ায় ইরান ইস্যুতে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ডেনাল্ড ট্রাম্পের নীতি বদলে গেছে। এ নিয়ে প্রেসিডেন্টের শপথ নেয়ার পর মুখ খোলেননি বাইডেন।

এমতাবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের ইউরোপীয় অন্যতম মিত্র ফ্রান্স ট্রাম্প আমলের নীতি অনুসরণের বার্তা দিয়েছে। ইরানকে পরমাণু সমঝোতা মেনে চলার কথা বলেছে দেশটি।

ফরাসি প্রেসিডেন্টের এলিসি প্রাসাদ গতকাল (মঙ্গলবার) এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার ফিরে আসার আগে ইরানকে এটি মেনে চলতে হবে।

এ বিবৃতির মাধ্যমে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করার দু’দিন পর পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার ফিরে আসার ব্যাপারে ইরানের সামনে পূর্বশর্ত আরোপ করল প্যারিস।

গত কয়েকদিন ধরে ফরাসি কর্মকর্তারা ইরানের বিরুদ্ধে বেশ কয়েবার বাগাড়ম্বর করেছেন।ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ ইভস লা দ্রিয়াঁ সম্প্রতি ইরানকে ‘অবিলম্বে’ পরমাণু সমঝোতায় দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি এমন সময় এ আহ্বান জানালেন যখন ২০১৮ সালের মে মাসে মার্কিন সরকার পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর থেকে ফ্রান্স’সহ তিন ইউরোপীয় দেশ এই সমঝোতায় নিজেদের দেয়া কোনো প্রতিশ্রুতি মেনে চলেনি।

আমেরিকা, ফ্রান্স, ব্রিটেন, জার্মানি, চীন ও রাশিয়া ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা সই করেছিল। ওই সমঝোতা অনুযায়ী ইরানের পরমাণু কর্মসূচিতে সীমাবদ্ধতা আনার বিনিময়ে তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় পাশ্চাত্য।

কিন্তু ২০১৮ সালের মে মাসে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আমেরিকাকে বেআইনিভাবে এই সমঝোতা থেকে বের করে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন।

নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নির্বাচনি প্রচারণায় একাধিকবার পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তবে তেহরান স্পষ্ট ভাষায় বলে দিয়েছে, পরমাণু সমঝোতায় ফেরার আগে আমেরিকাকে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করে এই সমঝোতায় ফেরা হবে অর্থহীন।আর আমেরিকা তা করলেই কেবল ইরান তার প্রতিশ্রুতিতে ফিরে আসবে; তার আগে নয়।