ডাইনোসরদের হাতের খাবার খেতে চান?

প্রকাশিত: ৪:০০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮ | আপডেট: ৪:০০:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮

পরিবার কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে খেতে গেছেন হোটেলে। আপনার অর্ডার নিতে হাজির হলো যে, তাকে দেখে তো আত্মারাম খাঁচাছাড়া! অথচ ডাইনোসর গ্রাহকের কথা মতো অর্ডার নিচ্ছে খাবারের, পানীয়র। বিল বানিয়ে দিচ্ছে, আবার বিদায়ের সময় থ্যাঙ্ক ইউও … নাহ জুরাসিক পার্কের কোনো দৃশ্য নয় একেবারেই। টোকিওতে ‘হেন না’ হোটেলে খেতে গেলে এমনই অভিজ্ঞতা হবে আপনার।

এ সত্যিই বিচিত্র অভিজ্ঞতা। ‘হেন না’ হলো সেই হোটেলগুলোর প্রথম, যেখানে আপনাকে সার্ভ করবে ডাইনোসরবেশী রোবোটেরা। ‘হেন না’ কথাটির মানেই হলো অদ্ভুতরকম।

বিশ্বের প্রথম রোবট কর্মচারীওয়ালা হোটেল হলো এই হেন না। রিসেপশন ডেস্কেও কিন্তু রোবট। দেখে মনেই হতে পারে এক্ষুণি বুঝি জুরাসিক পার্কের শ্যুটিং শুরু হবে, কিন্তু না, মাথায় টুপি পরা এই রোবো-ডাইনোরা আপনাকে নিয়ে যাবে আপনার পছন্দের টেবিলে।

এগিয়ে দেবে মেনু কার্ড। আপনাকে প্রথমেই এরা ভাষা বেছে নেওয়ার অপশন দেবে। জাপানি, ইংরেজি, চীনা বা কোরিয়ান ভাষাতে কথা বলতে পারবেন এই রোবটদের সাথে।

বিষয়টি এমন অদ্ভুত যে অনেকেই ঘাবড়ে যান। বিশালদেহী সব ডাইনোসর ছোট্ট ছোট্ট থালায় আপনাকে খাবার পরিবেশন করছে এটা অনেকের কাছেই অদ্ভুত ঠেকে। টোকিওর হেন না এর ম্যানেজার ইউকিও নাগাই স্বীকার করেন, অনেক গ্রাহকই প্রথমে ঘাবড়ে যান।

তিনি বলেন, আমরা সত্যিই মাঝে মাঝে বুঝতে পারি না অতিথিরা কখন মানুষের সার্ভিস চান কখন আবার ডাইনোসর-রোবটের। তবে অতিথিদের জন্য প্রতিটি রুমে মিনি-রোবট রয়েছে। অনেকটা স্টার ওয়ার্স ড্রয়েড বিবি-৮ এর মতো দেখতে তারা। তারা আপনার সব কাজ করে দিতে পারে। চ্যানেল বদলে দেওয়া, গান পালটে দেওয়া। এখানে সব কিছুই যান্ত্রিক। এমনকি বড় ট্যাঙ্কের মধ্যেকার মাছ গুলোও ব্যাটারিচালিত।