ডিও লেটারে সাক্ষর নিয়ে সাদ এরশাদের সঙ্গে মহানগর জাপার দ্বন্দ্ব চরমে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৪৫ অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০২০ | আপডেট: ৭:৪৭:অপরাহ্ণ, জুন ৩, ২০২০

রংপুর সদর আসনের এমপি প্রয়াত জাপা চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদের পুত্র রাহগির আল মাহি সাদ এরশাদের সাথে মহানগর জাপার দ্বন্দ্ব চরমে উঠেছে। ডিও লেটারে সাক্ষর নিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়লে ২৭ নং ওয়ার্ড জাপা’র সাধারণ সম্পাদক টিপু সুলতানকে পুলিশ আটক করে। এর প্রতিবাদে সাদের ড্রাইভারসহ দু’জনের গ্রেফতারে দাবিতে মহানগর জাপা ও যুবসংহতি আজ বুধবার নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সংবাদ সম্মেলন করে।

বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন মহানগর জাপার সভাপতি রসিক মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। অপরদিকে, আজ বুধবার দুপুরে বাসভবন পল্লী নিবাসে এক সংবাদ সম্মেলনে সাদ এরশাদ বলেন, একটি মহল তার বিরুদ্ধে নির্বাচনের আগে থেকেই ষড়যন্ত্র করছে। এ ঘটনায় দুই পক্ষই তাজহাট থানায় জিডি করেছেন।

দলীয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ডিও লেটারে স্বাক্ষর না করায় সাদ এরশাদের ওপর হামলার চেষ্টার অভিযোগ উঠে ২৭ নং ওয়ার্ড জাপার সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাতে পল্লী নিবাসে ডিও লেটারে সাক্ষর নিতে গেলে সাদ এরশাদ ডিও লেটারে সাক্ষর না করায় জাপা নেতা টিপু সুলতান ও তার অনুসারিরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে পুলিশ জাপা নেতা টিপু সুলতানকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় তার অনুসারিরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। পরে পুলিশ ও জাপার শীর্ষ নেতারা এসে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য পল্লী নিবাসে পুলিশ মোতয়েন করা হয়।

এদিকে, বুধাবার বেলা ১১ টার দিকে দলীয় কার্যালয় থেকে মহানগর জাপা’র একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে। পরে নগরী সেন্ট্রাল রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে মহানগর জাপা।

সংবাদ সম্মেলনে মহানগর জাপা সভাপতি ও সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, বহিরাগত ও ভাড়াটে গুন্ডাদের সাথে নিয়ে রংপুরে রাজনীতি করছেন সাংসদ সাদ এরশাদ। তার লেলিয়ে দেয়া বাহিনী ২৭ নম্বর ওয়ার্ড জাপার সাধারণ সম্পাদক টিপু সুলতানকে মারধর করেছে। অন্যায়ভাবে তাকে পুলিশে সোপর্দ করে ঘটনা ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

ওই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তসহ আটক নেতাকে ছেড়ে দিতে ২৪ ঘন্টা সময় বেধে দেন সিটি মেয়র মোস্তফা। তা না হলে বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে হবে বলে জানানো হয়। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা জাপার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হাজি আব্দুর রাজ্জাক, মহানগর জাপার যুগ্ম সম্পাদক লোকমান হোসেন, মহানগর যুবসংহতির সভাপতি শাহিন হোসেন জাকির প্রমুখ।

অপরদিকে, বুধবার দুপুরে পল্লী নিবাসে সাদ এরশাদ এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ওয়ার্ড জাপার নেতা টিপু সুলতান ও তার লোকজন এসে ডিও লেটারে সাক্ষরের জন্য আমাকে ও আমার স্ত্রীকে ভয়ভীতি ও গালিগালাজ করেছে । আমি জীবন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছি।নির্বাচনের আগ থেকে এখন পর্যন্ত আমি ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে চলছি।

তাজহাট থানার ওসি রোকোনুজ্জামান বলেন, পল্লী নিবাসের ঘটনায় কোন মামলা হয়নি। তবে দুই পক্ষই থানায় জিডি করেছে। আটক টিপু সুলতানকে ছেড়ে দেওয়া হবে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।