ডি ভিলিয়ার্স ঝড়ে লণ্ডভণ্ড রাজস্থান

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:২৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০ | আপডেট: ৮:২৫:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

আবারও জ্বলে উঠলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। নিজেকে যেন পরিপূর্ণ রূপে মেলে ধরতে পারছেন এবারের আইপিএলে। তার এমন বিধ্বংসী রূপই দেখতে চান আইপিএল সমর্থকরা। বিশেষ করে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর সমর্থকরা। ডি ভিলিয়ার্সের এই বিধ্বংসী রূপের সামনেই উড়ে গেল স্টিভেন স্মিথের দল রাজস্থান রয়্যালস।

মাত্র ২২ বল খেলেছেন ডি ভিলিয়ার্স। তাতেই ঝড় তুলে নামের পাশ যোগ করেছেন ৫৫ রান। ছিলেন অপরাজিত। দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন। বাউন্ডারি মেরেছেন মাত্র ১টি। ছক্কা?

এ জায়গায়ই তো সবচেয়ে বড় পার্থক্যটা গড়ে তুললেন। ৬টি ছক্কার মার এসেছে তার ব্যাট থেকে। রাজস্থানের বোলাররা রীতিমতো দিশেহারা হয়ে পড়েছিল তার বিধ্বংসী রূপের সামনে।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা দারুণ করেন রাজস্থানের রবিন উথাপ্পা ও বেন স্টোকস। দুজনের ওপেনিং জুটিতে আসে ৫০ রান। স্টোকসকে (১৫) সাজঘরে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন ক্রিস মরিস। এরপর দলীয় ৬৯ রানে উথাপ্পা (৪২) ও সঞ্জু স্যামসনকে (৯) হারিয়ে বিপদে পড়ে রাজস্থান।

কঠিন মুহুর্তে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটাসম্যান ৩৬ বলে করেন ৫৭ রান। তার ইনিংসটি সাজানো ছিল ৬ চার ও ১ ছক্কায়। এছাড়া জস বাটলারের ২৪, জোফরা আর্চারের ২ এবং অপরাজিত থাকা ব্যাটসম্যান রাহুল তেওয়াতিয়ার ১৯ রানের ওপর ভর করে ৬ উইকেটে ১৭৭ রান করে রাজস্থান।

ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে মরিস একাই নেন ৪ উইকেট। বাকি উইকেট ২টি নিয়েছেন যুজুবেন্দ্র চাহাল।

জবাব দিতে নেমে ব্যক্তিগত ১৪ রানে ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ সাজঘরে ফিরলেও আরেক ওপেনার দেবদূত পাডিক্কালকে (৩৫) নিয়ে এগোতে থাকেন বিরাট কোহলি। ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়ক যখন সাজঘরে ফিরছেন তখন দলের রান ১০২। কোহলির ৩২ বলে ৪৩ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১ চার ও ২ ছক্কায়।

এরপরও অবশ্য জয়ের জন্য চিন্তা করতে হয়নি তাকে। ব্যাটিংয়ে নেমে ঝড় তুলেন ডি ভিলিয়ার্স। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে ২২ বলে ৫৫ রান করেন তিনি। ডি ভিলিয়ার্সকে সঙ্গ দেন গুরকিরাত সিং মান (১৯)। ১৯.৪ বলে ৩ উইকেটে হারিয়ে ১৭৯ রান করে জয় তুলে নেয় ব্যাঙ্গালুরু।