তালায় তৃণমূল আ’লীগে ব্যাপক অসন্তোষ

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃণমূলের মতামত উপেক্ষা

প্রকাশিত: ৭:৫৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৯ | আপডেট: ৭:৫৯:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৯
সাতক্ষীরা জেলা

এম এ ফয়সাল, তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় তৃণমুলের মতামত উপেক্ষা করে পছন্দের প্রার্থীদের নামের তালিকা পাঠানোর অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে ৭ ফেব্রুয়ারী সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের কাছে অভিযোগ দিয়েছে বঞ্চিতরা।

আওয়ামী লীগের নির্দেশনা অনুযায়ী, তৃণমুলের মতামতের ভিত্তিতে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ৩ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জনের নাম জেলা নেতাদের কেন্দ্রে পাঠানোর কথা। অথচ এই নির্দেশনা মানেনি সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক। উপজেলা বর্ধিত সভায় চেয়ারম্যান পদে তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম মনোনিত হয়।

তবে তাদের নাম না পাঠিয়ে তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ফিরোজ কামাল শুভ্র-এর নাম পাঠিয়েছে জেলা কমিটি। এদের মধ্যে তৃণমুলের ভোটে শেখ নুরুল ইসলাম ও ফিরোজ কামাল শুভ্র অংশ গ্রহণ করেননি। ফিরোজ কামাল শুভ্র বাড়ি তালায় হলেও তিনি থাকেন জেলা শহরে।

মনোনয়ন বঞ্চিতদের অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দলীয় মনোনয়নের লক্ষ্যে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গত ২৬ জানুয়ারী তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মনোনয়নের জন্য চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ফিরোজ কামাল শুভ্র, উপ-প্রচার সম্পাদক প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু, তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম আবেদন করেন।

এ সময় কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী তৃনমুলের নেতা-কর্মীরা ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী নির্বাচনের দাবী জানালে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সভা মুলতবি করে চলে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এসময় দলীয় নেতা-কর্মীদের চাপের মূখে পরদিন ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী মনোনয়নের সিদ্ধান্ত দেন তিনি। পরে ২৭ জানুয়ারী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সরদার ফিরোজ আহম্মেদের উপস্থিতিতে ২৯০ জন কাউন্সিলারের মতামতের ভিত্তিতে তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম মনোনিত হয়। অথচ প্রণব ঘোষ বাবলু ও মো. রফিকুল ইসলামের নাম বাদ দিয়ে তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ফিরোজ কামলা শুভ্র ও ঘোষ সনৎ কুমারের নাম পাঠিয়েছেন তারা ।

তালা উপজেলার খলিলনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগৈর সভাপতি সরদার ইমান আলী জানান, তৃণমুলের মতামতের ভিত্তিতে যাদের নাম গেছে, তারা মনোনয়ন না পেলে দল ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বিভিন্ন সময়ে যারা নৌকার বিরোধীতা করেছে, তাদের নাম যদি কেন্দ্রে যায় এর থেকে দুঃখ কিছু নেই।

জালালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রাম প্রসাদ দাশ জানান, তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতে তিন জনের নাম গেছে। তারা কেউ মনোয়ন পেলে জয়ী হবেন বলে আশা করেন তিনি।

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক ও তালা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রভাষক প্রণব ঘোষ বাবলু জানান, দলের গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের নিকট লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন বলে জানান। একই ধরণের বক্তব্য প্রদান করেন চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহ-সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম।

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগটি অনেকাংশে সত্য। কিন্তু জেলা সভাপতির সাথে ঐক্যমত না হওয়ায় বিষয়টি সমাধান করা যায়নি।

তবে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনসুর আহম্মেদ দেশের বাইরে থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।