ত্রাণ পেয়ে শাবানার মুখে প্রশান্তির হাসি

শহিদ জয় শহিদ জয়

যশোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৮:৩৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২০ | আপডেট: ৮:৩৩:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০২০

হতদরিদ্র মধ্যবয়সী গৃহবধু শাবানার হাসি যেন হারিয়ে গেছে। গেল কয়েকদিন হলো কাজ নেই। রাস্তায় মাটিকাটার কাজটি বন্ধ রয়েছে বেশ কিছুদিন। ভ্যানচালক স্বামীরও আয়-রোজগার কমেগেছে। মরণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রশাসনের নির্দেশে সবকিছু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কাজ না থাকায় অর্ধাহারে চলছে তাদের পাঁচ সদস্যের সংসার।

এ অবস্থায় শুক্রবার দুপুরে তার গ্রামে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে হাজির হন একদল মানুষ। কিছুক্ষণ পর শাবানার ডাক আসে সেখানে। এ সময়খাদ্যসামগ্রীর একটি প্যাকেট হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয় তাকে। বলা হয় এ গ্রামের সন্তান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শেখ আব্দুল্লাহ রানা পাঠিয়েছেন এ খাবার। এ সময় প্যাকেটটি হাতে নিয়ে হেসে দেখান প্রশান্তির হাসি। বলেন ‘এটুকুই বা কয়জন করেন’।

শাবানার বাড়ি যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার জহুরপুর ইউনিয়নের বড়খুদরা গ্রামে। শাবানার মতো মঝিয়ালি গ্রামের রহিমা,জহুরপুরের দিনমজুর আব্দুল হালিমও খাদ্রসামগ্রী পেয়ে যারপরনাই খুশি।

ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক,বর্তমান যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা শেখ আব্দুল্লাহ রানা তার নিজ ভূম বাঘারপাড়ার জহুরপুর ইউনিয়নের হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের সিদ্ধান্ত দেন।

গত কয়েকদিন ধরে এ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে আব্দুল্লাহ রানার পৃষ্টপোষকতায় এ উপজেলার জহুরপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার পৌঁছে দেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বিএম শাহাজালালসহ একটি প্রতিনিধিদল। শুক্রবার পর্যন্ত তারা পাঁচ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্রসামগ্রী পৌঁছে দেন বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। এছাড়া এ কর্মকান্ড অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছেন তারা। খাদ্যসামগ্রীর প্যাকেজে রয়েছে চাল,ডাল,আলু ও তেল। এছাড়া দেওয়া হচ্ছে হাত ধোয়ার সাবানও।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বিএম শাহাজালালের নেতৃত্বে এ খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে দেখা মেলেজহুরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার টপি,স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুর রউফ মুন্সি,ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা সুকান্ত বিশ্বাস,ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি বিএম আল-আমিন,সাধারণ সম্পাদক নাসিমুল হক হৃদয়,ছাত্রলীগ নেতা হৃদয় হোসেন,শামীম রেজা,সাকিব হোসেন প্রমূখ।
এ সময় খাজুরা ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআাই জুম্মন খান এ টিমের সাথে থেকে খাদ্যসামগ্রী বিকরণ করেন।

জানতে চাইলে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক,বর্তমান যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা শেখ আব্দুল্লাহ রানা বলেন,‘আমার সাধ অনেক। কিন্তু সাধ্য কম। তবুও চেষ্টা করছি আমার এলাকার কোন মানুষ যেন না খেয়ে থাকে৷