দক্ষিণ সুনামগঞ্জে স্বাধনিতার ৪৮ বছর পরে নির্মাণ হচ্ছে দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন

প্রকাশিত: ৮:৪৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ৪, ২০২০ | আপডেট: ৮:৪৫:অপরাহ্ণ, জুলাই ৪, ২০২০

সোহেল তালুকদার, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপির প্রচেষ্ঠায় নির্মাণ হচ্ছে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন। আনন্দে উল্লসিত এলাকাবাসী।

উপজেলা প্রকৌশলীর (এলজিইডি) অফিস সূত্রে জানা যায়, স্থানীয় সরকার বিভাগের ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) এর মাধ্যমে জিওভি ফান্ডের অর্থায়নে ১ কোটি ৯৩ লক্ষ ৩৭১.২৬ টাকা ব্যয়ে উপজেলার দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদ ভবন নিমাণ করা হবে। দরপত্রের মাধ্যমে প্রকল্পটির কাজ পায় আনোয়র এন্টারপ্রাইজ নামে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। গত ১৮ জুন ২০২০ইং তারিখে উপজেলা প্রকৌশল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তিস্বাক্ষর সই করেন। প্রকল্পটি জুলাই মাস হতে আগামী ৯ মাসের মধ্যে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ সম্পন্ন করার কথা রয়েছে।
বিগত ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং তারিখে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন, সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী (বর্তমান পরিকল্পনামন্ত্রী) এম এ মান্নান এমপি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দরগাপাশা ইউনয়িন পরিষদের কার্যক্রম একটি পুরাতন জরাজীর্ণ ছোট্ট বিল্ডিং এ কার্যক্রম চলছে। ইউনিয়ন পরিষদের মূল ভবনে জায়গা না থাকায় ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার অন্য জায়গায় পরিচালিত হচ্ছে। এলকার জনসাধারণকে সেবা দিতে অনেক কষ্ট হচ্ছে ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি সচিবের।

জানা যায়, স্বাধীনতা পরবর্তীতে এই ইউনয়িন পরিষদে অকেই চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। কিন্তু কেউই পরিষদের জন্য তেমন কোন কাজ করে যেতে পারেননি। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মনির উদ্দিন বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকেই ইউনিয়ন পরিষদের নতুন ভবন নির্মাণের জন্য দৌড়ঝাপ শুরু করেন। সুনামগঞ্জ-৩ (দাক্ষণ সুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুর) আসনের সংসদ সদস্য বর্তমান সরকারের মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপির কাছে বার বার দাবি জানিয়ছেন ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের জন্য। পরে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে ডিও লেটার দিয়েছিলেন যেন দ্রæত সময়ে দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ করা হয়।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপির প্রচেষ্ঠায় স্থানীয় সরকার বিভাগের কর্মকর্তারা ইউনিয়ন পরিষদের জায়গা পরিদর্শন করে ভবনের সম্বাব্যতা যাচাই করে প্রকল্প তৈরি করেন।

দরগাপাশা ইউনিয়নের বাসিন্দা আবু খালেদ চৌধুরী রুবেল ও সাজিদ চৌধুরী ইয়াওর মিয়া জানান, আমরা ইউনিয়নবাসী আজ অনেক আনন্দিত মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ ভবন দিয়েছেন। আমাদের ইউনিয়ন পরিষদটি অনেকটা পিছিয়ে ছিলো। ভবনটি নির্মাণ হলে আমাদের এলাকার জনসাধারণ ভালো ভাবে ইউনয়িন পরিষদের সেবা নিতে পারবেন। আমার ইউনিয়নবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি ও আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মনির উদ্দিন ভাইকে। পরিষদের চেয়ারম্যান সাহেব নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই পরিষদের ভবন নির্মাণ করার জন্য অনেক চেষ্টা করেছেন। তাই আমরা ইউনিয়নবাসী বর্তমান চেয়ারম্যান সাহেবের কাছেও কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি।

এ ব্যাপারে দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মনির উদ্দিন জানান, আমার আগে অনেকেই চেয়ারম্যান হয়েছেন, তারারও চেষ্ঠা করেছেন ইউনয়িন পরিষদ ভবন নির্মাণ করার জন্য কিন্তু পারেননি। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই পরিষদের ভবন নির্মাণ করার জন্য বার বার মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি কাছে দাবি জানিয়েছে। তিনি আমাকে অনেক ভালবাসেন, তেমনি আমার ইউনিয়নের গনগণকেও ভালবাসেন। মন্ত্রী স্যারের প্রচেষ্ঠায় আমার ইউনিয়ন পরিষদ ভবন আজ নির্মাণ হচ্ছে। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও আমাদের হাওর রতœ পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি স্যারকে এলাকাবাসীর পক্ষে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

উপজেলা প্রকৌশলী শামীম হাসান এ প্রতিবেদককে জানান, প্রকল্পটি যাতে দ্রæত সময়ে ও সঠিক নিয়মে বাস্তবায়িত হয় সে দিকে আমরা খেয়াল রাখবো। আশা করি সময় মতো এই প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হবে। ইতোমধ্যে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের সাথে আমাদের চুক্তিস্বাক্ষর সই হয়েছে। এ মাসেই ঠিকাদার কাজে যোগদান করার কথা। ৪-৫দিনে মধ্যেই হয়তো কাজ শুরু করনে তারা।

সরকারের পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি এ প্রতিবেদককের সাথে আলাপ কালে জানান, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে স্থানীয় সরকারকে গুরুত্ব দিয়ে আসছে। আমরা দেশের প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদকে শক্ত ভাবে গড়ে তুলার চেষ্টা করে যাচ্ছি। যেখান থেকে দেশের সাধারণ নাগরিক অতি সহজে সরকারের সেবা নিশ্চিত করতে পারে। দেশের সকল ইউনিয়ন পরিষদের কমপ্লেক্স ভবন পর্যায়ক্রমে নিমার্ণ করা হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, শুধু ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স নয় দেশে অনেক বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। প্রতিটি জেলায় মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ব বিদ্যালয়ও স্থাপন হচ্ছে। প্রকৃত পক্ষে আওয়ামী লীগ সরকার দেশের বন্ধু। এই সরকার যতবার ক্ষমতায় এসেছে দেশের মাটি ও মানুষের উন্নয়নে কাজ করেছে। করোনা, বন্যা ও অনেক প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যেও আমাদের উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে বলেও জানান তিনি।