দিনমজুর পরিবারের মেধাবী ছাত্রী আশামনির পাশে দাড়ালেন কুড়িগ্রাম প্রেস কাবের সাধারণ সম্পাদক

বাদশাহ সৈকত বাদশাহ সৈকত

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯:৫৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০২০ | আপডেট: ৯:৫৫:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০২০

“অর্থাভাবে মেধাবী আশামনির আশা ভঙ্গের উপক্রম” এই শিরোনামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি লেখা কুড়িগ্রাম প্রেস কাবের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান বিপ্লবের নজরে আসে। তিনি তখনই ঘোষণা দেন আশামনির উচ্চমাধ্যমিকে পড়ালেখার যাবতীয় ব্যয় বহন করবেন।

এরই প্রেেিত বৃহস্পতিবার দুপুরে কুড়িগ্রাম প্রেস কাবের সৈয়দ শামসুল হক মিলনায়তনে কলেজে ভর্তি ও বই কেনা বাবদ নগদ পাঁচ হাজার টাকা আশামনির হাতে তুলে দিয়ে তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের সুচনা করেন সাধারণ সম্পাদক। তিনি এসময় উচ্চমাধ্যমিক এ তার পড়ালেখার যাবতীয় ব্যয়ভার বহনের নিশ্চয়তাও প্রদান করেন।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রেস কাবের সহসভাপতি রেজাউল করিম রেজা, সাংবাদিক রফিকুল হক রফিক, রাজারহাট প্রেস কাবের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, আশামনি পানিমাছকুটি মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে পিএসসি পরীায় জিপিএ ৪.৭৫ ও জেএসসি পরীার জিপিএ ৫ পেয়েছিল। ফুলবাড়ী জছিমিঞা সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় হতে এবারের এসএসসি পরীায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ৫ পাওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করে।

আশামনির পিতা দিনমজুর, মা অন্যের বাড়িতে কাজ করে এবং উচ্চমাধ্যমিক পাশ একমাত্র ভাই আশরাফুল করোনাকালে সদ্য চাকুরীচ্যুত গার্মেন্টস কর্মী।
এই দৈন্যদশায়েও আশামণির স্বপ্ন সে লেখাপড়া চালিয়ে উচ্চ মাধ্যমিকেও ভালো ফল করে মেডিকেল কলেজে ভর্তি হবে এবং লেখাপড়া শেষ করে একদিন ডাক্তার হয়ে দেশের মানুষের সেবা করবে।

এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম প্রেস কাবের সাধারণ সম্পাদক খ.ম আতাউর রহমান বিপ্লব জানান, অবহেলিত এই জেলা কে আলোকিত করতে শিার বিকল্প নেই। নতুন প্রজন্ম কে সুশিতি করতে পারলেই আমরা আমাদের স্বপ্নের জন্মভুমি গড়তে পারবো। ইচ্ছে থাকার পরও উচ্চ শিায় পড়তে পারবে না এটা মেনে নিতে আমার কষ্ট হয়। শুধু আশামনি নয় যে কারো অভাবে পড়াশোনা চালাতে সমস্যা হলে আমাকে জানালে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবো।