দুই পা নেই, তবুও মডেল হিসেবে সফল তিনি

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: 4:58 PM, October 3, 2019 | আপডেট: 4:58:PM, October 3, 2019
ছবি: রয়টার্স

জন্মগত ত্রুটির কারণে মাত্র দেড় বছর বয়সে ব্রিটেনের নয় বছর বয়সেই দুই-পা কেটে ফেলতে হয়েছিল। তবুও থেমে নেই জীবন। আর জীবনকে শুধু কোনরকেম অতিবাহিতই নয়, পুরোদস্তুর এক সফল মডেল সে।

বলছিলাম নয় বছর বয়সি ব্রিটিশ মডেল ডেইজি-মে দিমিত্রির কথা। সম্প্রতি সে প্যারিস ফ্যাশন সপ্তাহে অংশ নিয়েছে সে।

প্যারিস ফ্যাশন উইকে ক্যাটওয়াক করছে ব্রিটেনের ডেইজি-মে দিমিত্রি। নয় বছর বয়সি দিমিত্রির প্যারিসে এটিই প্রথম অংশগ্রহণ। এর আগে লন্ডন ও নিউইয়র্কে হেঁটেছে সে। খবর ডয়চে ভেলের।

জন্মগত ত্রুটির কারণে মাত্র দেড় বছর বয়সেই ডেইজির দুই পা কেটে ফেলতে হয়েছিল। সেই থেকে কৃত্রিম পা ব্যবহার করে স্কুলে যায় সে। তবে মডেলিংয়ের সময় কার্বন ব্লেড ব্যবহার করে ডেইজি।

ফ্যাশন নিয়ে একটি টিভি শো দেখে ডেইজিকে মডেলিং সম্পর্কে জানিয়েছিল তার বাবা। এরপর বছরখানেক আগে ব্রিটেনে শিশুদের পোশাকের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের হয়ে মডেলিং শুরু করে ডেইজি। প্যারিসে সে ফরাসি ব্র্যান্ড ‘লুলু ই জিজি’র মডেল হয়েছে।

অভিজাত এই ব্র্যান্ডের বাচ্চাদের একটি ‘প্রিন্সেস অ্যান্ড দ্য পি’ গাউনের দাম ২,৬০০ ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে। ডেইজিকে মডেল করার সিদ্ধান্ত নিতে দ্বিতীয়বার ভাবতে হয়নি বলে জানিয়েছেন লুলু ই জিজির প্রতিষ্ঠাতা এনি হেগিডাস বুইরো। ডাউন সিন্ড্রোম থেকে শুরু করে ‘কার্ভি’ কিশোরী – সবাই লুলু ই জিজির মডেল হয়েছে বলে জানান তিনি।

ডেইজির জন্মের পর মেয়ের ভবিষ্যৎ চিন্তায় উদ্বিগ্ন হয়ে একবার আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন তার বাবা অ্যালেক্স দিমিত্রি। তবে এখন মেয়ের সাফল্যে খুশি তিনি। ‘‘সে যখন জন্মেছিল তখন আমরা মনে করেছিলাম, দুনিয়ার সব শেষ হতে চলেছে। কিন্তু এখন দেখছি, সে আমাদের জন্য একটি উপহার ছিল,’’ বলেন দিমিত্রি।

রয়টার্সকে ডেইজি জানিয়েছে, সে সুন্দর পোশাক পরে ক্যামেরার সামনে আসতে পছন্দ করে। ‘‘প্রথমে চুল ঠিক করি, তারপর মেক-আপ নিই। তারপর পোশাক ও পা পরে ক্যাটওয়াকে যাই। কখনো কখনো আমি যে অন্যরকম, তা বুঝতে পারি না,’’ বলে ডেইজি।