দুদকের মুখোমুখি হলেন পেট্রোবাংলার আরও ৮ কর্মকর্তা

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:২১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৮, ২০১৮ | আপডেট: ৩:২১:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৮, ২০১৮
ফাইল ছবি

দিনাজপুরের বড় পুকুরিয়ায় কয়লা কেলেঙ্কারির ঘটনায় পেট্রোবাংলার আরও আট কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার সকাল ৯টা দুদকের প্রধান কার্যালয়ে কমিশনের উপ-পরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সামছুল আলম তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছেন। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।

এরা হলেন-পেট্রোবাংলার মহাব্যবস্থাপক (মাইন অপারেশন) আবু তাহের মো.নুরুজ্জামান চৌধুরী, উপ-মহাব্যবস্থাপক একেএম খালেদুল ইসলাম, উপ-ব্যবস্থাপক (মেইনটেনেন্স অ্যান্ড অপারেশন) মোরশেদুজ্জামান, উপ-ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) হাবিবুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপক (মাইন ডেভেলপমেন্ট) জাহেদুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপক (ভেন্টিলেশন ম্যানেজমেন্ট) সত্যেন্দ্র নাথ বর্মণ; ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) সৈয়দ ইমাম হাসান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (মাইন প্ল্যানিং অপারেশন) জোবায়ের আলী।

এই আটজনের সবাই বড় পুকুরিয়ার কয়লা চুরির মামলার এজাহারভুক্ত আসামি।

এর আগে গত ১৩ অগাস্ট পেট্রোবাংলার ৩২জনকে তলব করে চিঠি দেয় দুদক। তাদের মধ্যে দুই দফায় ১৫ জন দুদকের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হলেন। বাকিদের আগামি ২৯ ও ৩০ অগাস্ট তলব করা আছে।

প্রসঙ্গত, কয়লা দুর্নীতির ঘটনায় গত ২৪ জুলাই দিনাজপুরের পার্বতীপুর মডেল থানায় বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ ১৯ জনকে আসামি করে দুর্নীতি দমন আইনে মামলা করেন কোম্পানিটির ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মোহাম্মদ আনিছুর রহমান।

পরে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পান দুদকের উপ-পরিচালক মো. সামছুল আলম।

মামলার এজাহারে বলা হয়, খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহমেদ, কোম্পানি সচিব ও মহা-ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) আবুল কাশেম প্রধানিয়া, মহা-ব্যবস্থাপক (মাইন অপারেশন) নূর-উজ-জামান চৌধুরী ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (স্টোর) একেএম খালেদুল ইসলামসহ খনির ব্যবস্থাপনায় জড়িত অপর আসামিরা ওই কয়লা চুরির ঘটনায় জড়িত।