দুর্গম পাহাড়ি স্কুলে সুশিক্ষার সাথে স্বাস্থ্যসেবাও

প্রকাশিত: ৯:০৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ | আপডেট: ৯:০৮:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

স্থানটি জেলার চুনারুঘাট উপজেলার সাটিয়াজুরী ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকার। এ স্থানে ১৯৫০ সালে কমহলেও ৩০০একর পাহাড়ি ভূমির ওপর বৈরাগীপুঞ্জি গড়ে উঠে। এ পুঞ্জিতে প্রায় ৬৫টি পরিবারে প্রায় সাড়ে ৪০০ লোকের বসবাস। জীবিকা নির্বাহে তারা লেবু ও পান চাষে জড়িত।

দুর্গম সবুজ পাহাড়ের মাঝখানেই শিক্ষার জন্য ১৯৭৩ সালে বৈরাগীপুঞ্জি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন হয়। এ পুঞ্জির কাছেই এ স্কুলটির অবস্থান। এখানে পুঞ্জির শিশুরা সুশিক্ষা গ্রহণ করছে। শিক্ষকরা পাঠদান করছেন।

এরই মধ্যে ৯ ফেব্রুয়ারি ‘সুযোগ চাই মানুষ হবো, শিক্ষার সঙ্গে স্বাস্থ্যসেবাও প্রতিটি শিশুর মৌলিক অধিকার শ্লোগান নিয়ে বৈরাগীপুঞ্জি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত সকল শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে। এতেই প্রমাণ করেছে স্কুলের শিক্ষকরা পাঠদানের পাশাপাশি শিশুদের স্বাস্থ্যসেবার ব্যাপারেও যত্নশীল।

পুঞ্জির মন্ত্রী সাদেক মিয়া বলেন, এখানে স্কুল থাকাতে পুঞ্জির শিশুরা পড়াশুনা করতে পারছে। লেখাপড়ার সাথে শিক্ষকরা শিশুদের স্বাস্থ্যসেবায় পরামর্শ প্রদান করে থাকেন।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক আমেনা খাতুন ঝুনু বলেন- দুর্গম স্থান হলেও আমরা নিয়মিত স্কুলে এসে ক্লাস করাচ্ছি। এখানের শিশুদের মাঝে সুশিক্ষার পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবার পরামর্শ প্রদান করে যাচ্ছি। ৯ ফেব্রুয়ারি স্কুলে অয়্যয়নরত শিশুদেরকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে।

তিনি বলেন, ভিটামিন ‘এ’ শুধুমাত্র অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুদেরকে রক্ষা করে তাই নয়, ভিটামিন ‘এ’ শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং মৃত্যুর ঝুঁকি কমায়।
রাতকানা রোগের প্রাদূর্ভাব ও অপুষ্টিজনিত মৃত্যু প্রতিরোধে ৫ বছরের কম বয়সী শিশুদেরকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে হয়। সরকারের এ মহতি উদ্যোগকে তিনি স্বাগত জানান।