দুর্গাপূজায় কোনো ধরনের নাশকতার আশঙ্কা নেই : র‌্যাব ডিজি

প্রকাশিত: ৮:৩৬ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০ | আপডেট: ৮:৩৬:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০

শারদীয় দুর্গাপূজাকে ঘিরে কোনো ধরণের নাশকতার আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। তিনি বলেন, নিরাপত্তা নিশ্চিতে দেশজুড়ে সার্বিক নজরদারি অব্যাহত রয়েছে। গোয়েন্দা তথ্যানুযায়ী পূজায় কোনধরনের নাশকতার আশঙ্কা নেই। তবে যেকোনো পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত রয়েছে পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

এ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকাসহ দেশজুড়ে র‌্যাবের কঠোর নজরদারি ও গোয়েন্দা তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে। সার্বিকভাবে যেকোনো পরিস্থিতির জন্য সতর্ক রয়েছে র‌্যাব।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজামন্ডপের সার্বিক নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। র‌্যাবের অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

র‌্যাব প্রধান বলেন, ‘এবার সারাবিশ্ব এক অদৃশ্য মহামারির মধ্য দিয়ে পার হচ্ছে। তাই আমরা আশা করছি, সবাই অনুষ্ঠানস্থলে স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে সতর্ক থাকবেন। এবার ভিন্ন প্রেক্ষাপটে সীমিত পরিসরে পূজার আয়োজন হলেও সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে র‌্যাব প্রস্তুত রয়েছে। র‌্যাবের বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াড ও সুইপিং টিম প্রস্তুত রয়েছে’।

র‌্যাব ডিজি বলেন, ২১ অক্টোবর বোধনের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া শারদীয় দুর্গাপূজা ২৬ অক্টোবর বিজয়া দশমীর মধ্যদিয়ে শেষ হবে। পূজাস্থলে নিয়োজিত অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সেজন্য সকলের সঙ্গে সমন্বয় করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে।

চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, দুর্গাপূজা উপলক্ষে র‌্যাবের এয়ার উইং প্রস্তুত রয়েছে। দেশজুড়ে পূজামন্ডপকে ঘিরে র‌্যাবের পেট্রোলিং ও গোয়েন্দা নজরদারি চলমান থাকবে। মেট্রোপলিটন এলাকা ও জেলা শহরগুলোতে বাড়তি নজরদারিসহ প্রস্তুত থাকবে র‌্যাবের কুইক রেসপন্স টিম।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পূজাকেন্দ্রিক যেকোনো গুজব এড়াতে ও পূজামন্ডপে নারী দর্শনার্থীদের ইভটিজিং রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলেও জানান র‌্যাব মহাপরিচালক।

এবার বিসর্জনে জনসমাগত কম হলেও র‌্যাবের নিরাপত্তা জোরদার থাকবে উল্লেখ করে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, প্রত্যেকটি ব্যাটালিয়নে কন্ট্রোল রুম রয়েছে। র‌্যাব সদর দফতরে স্থাপিত কন্ট্রোল রুম থেকে সার্বিক্ষণিকভাবে পর্যবেক্ষণ অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।