দেশে ‘ভারতীয় ইলিশ’ চাষ নিষিদ্ধ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০ | আপডেট: ৯:০০:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

ভারতের মনিপুরী রাজ্যে চাষ হওয়া ‘মনিপুরী ইলিশ দেশতে বাংলাদেশের রূপালী ইলিশের মতো হলেও স্বাদ ও গন্ধ একেবারেই ভিন্নতর। একটি অসাধু চক্র চাষের জন্য মনিপুরী ইলিশের পোনা দেশের বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে দিয়েছে। এমনকি কোনো কোনো জেলায় চাষের পাশাপাশি পোনা উৎপাদনও হচ্ছে।

বিষয়টি সামনে আসে সম্প্রতি মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে ময়মনসিংহ জেলা মৎস্য কর্মকর্তার পাঠানো একটি চিঠির মাধ্যমে। ওই চিটিতে ইলিশের সুনাম রক্ষায় ভারতীয় এ জাতের নিম্নমানের মাছ চাষের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানানো হয়।

সেইসঙ্গে বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়ে ‘মনিপুরী ইলিশ’ চাষের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে মৎস্য অধিদপ্তর। সব জেলার মৎস্য কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক (মৎস্য চাষ) আজিজুল হকের সই করা চিঠিতে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়, অন্য দেশ থেকে অবৈধভাবে দেশে ঢুকছে তথাকথিত ‘মনিপুরী ইলিশ’। দেশের হ্যাচারিতে এর পোনা উৎপাদন ও চাষ হচ্ছে বলে খবর বেরিয়েছে। ময়মনসিংহে অবৈধভাবে এ মাছের পোনা উৎপাদনের দায়ে একটি বেসরকারি হ্যাচারিকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

হ্যাচারি আইন-২০১০ এর ৮ ও ৯ ধারা এবং মৎস্য সঙ্গনিরোধ আইন-২০১৮ এর ৯ ধারার কথা উল্লেখ করে চিঠিতে বলা হয়, অনুমতি ছাড়া জীবিত মৎস্য, রেণু পোনা আমদানি ও পোনা উৎপাদন করা যাবে না। আমদানির অনুমতিপত্র ছাড়া দেশের ভেতরে মৎস্য, মৎস্য পণ্য, উপকারী জীবাণু বা প্যাকিং দ্রব্যাদি আমদানি করা যাবে না।

মনিপুরী ইলিশের বিষয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়ে বলা হয়েছে, কোনো হ্যাচারিতে এ প্রজাতির মাছের পোনা উৎপাদন করা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা এবং পুকুরে বা খামারে এর চাষ বন্ধের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

বলা হচ্ছে, রূপালী ইলিশ স্বাদে-গন্ধে অনন্য হওয়ায় দেশ-বিদেশে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। বিশ্বের ৮০ ভাগ ইলিশই বাংলাদেশের নদী থেকে আহরণ করা হয়। ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে বছরের নির্দিষ্ট দুই সময় এ মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকে। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে একটি অসাধু চক্র কথিত মনিপুরী ইলিশের চাষ সম্প্রসারণ করতে চেষ্টা করছে, তা বন্ধে এবার পদক্ষেপ নিলো বাংলাদেশ।