নিজেকে সর্বকালের সেরা প্রমাণ করতে যা করতে চান রোনালদো

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৫১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯ | আপডেট: ৬:৫১:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯

বর্তমান সময়ের সবেচেয়ে সেরা খেলোয়াড় পর্তুগিজ উইঙ্গার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এবং আর্জেন্টিনার মেসি। দু’জনেই পাঁচটি করে ব্যালন ডি’অর জিতেছেন। কিন্তু রোনালদো এতে মোটেও সন্তুষ্ট নন। বার্সেলোনা তারকা মেসির চেয়ে বেশি ব্যালন ডি’অর জিতে ক্যারিয়ার শেষ করতে চান তিনি। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা জানা যায়।

আইটিভি’র ক্রিস্টিয়ায়নো রোনালদো মিটস পিয়ার্স মরগান’ অনুষ্ঠানে জুভেন্টাস ফরোয়ার্ড বলেন, ‘আমি অবশ্যই আরও (ব্যালন ডি’অর) চাই এবং আমি মনে করি এটা আমার প্রাপ্য।’

৩৪ বছর বয়সী জুভেন্টাস তারকা বলেন, ‘মেসি ফুটবলে ইতিহাসে জায়গা করে নিয়েছে। কিন্তু আমি মনে করি তাকে ছাড়িয়ে যেতে আমার ছয় অথবা সাত কিংবা আটটি (ব্যালন ডি’অর) থাকতে হবে।’

যাদের বিপক্ষে খেলেছেন তাদের মধ্যে মেসিকেই সেরা মানেন রোনালদো, কিন্তু তিনি নিজেকে ফুটবলের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা না হলেও অন্তত অন্যতম সেরা হিসেবে দেখতে চান। তবে কোনো ভক্ত যদি তার সঙ্গে একমত না হলেও তাতে কোনো সমস্যা দেখেন না তিনি, ‘আমি যা করেছি এবং যা করে যাচ্ছি তাতে আমি নিশ্চিত যে আমি ফুটবলের ইতিহাসের অংশ। আমি ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়।’

সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকা বলেন, ‘আমার হিসেবে আমিই ইতিহাসের সেরা, কিন্তু কিছু সমর্থকের মতে যদি অন্য কেউ সেরা হয় আর আমি দ্বিতীয়, তাতে কিছু যায় আসে না। আমি জানি আমি ফুটবলের ইতিহাসে আমি সর্বকালের সেরাদের একজন।’

ক্লাব ক্যারিয়ারে ৫টি চ্যাম্পিয়নস লিগের শিরোপা জেতার স্বাদ পেয়েছেন রোনালদো। তাছাড়া পর্তুগালের হয়ে ২০১৬ ইউরোর শিরোপাও জিতেছেন তিনি। ব্যক্তিগতভাবে ১৪৫টি রেকর্ডের মালিক রোনালদো, যার মধ্যে আছে জাতীয় দলের জার্সিতে ইউরোপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোল এবং উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড।

ক্যারিয়ারে বিশাল অর্জনের রহস্য খোলাসা করে রোনালদো বলেন, ‘এটা আমার জেতার জন্য ত্যাগ আর মরিয়া চেষ্টার ফলে সম্ভব হয়েছে। সফলতা তাকেই বলি, যার জন্য আমি কাজ করেছি। শুধু প্রতিভা যথেষ্ট নয়, আমি অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছি, রেকর্ডগুলো তাই আমার অংশ।’

তবে রেকর্ডের জন্য লালায়িত থাকেন না বলেও জানালেন রোনালদো, ‘আমি রেকর্ডকে অনুসরণ করি না, রেকর্ড আমাকে অনুসরণ করে। আমি সফলতায় আসক্ত এবং আমি মনে করি না এটা খারাপ কিছু। বরং আমার মতে এটা ভালো। এটা আমাকে মোটিভেট করে। যদি আপনি মোটিভেটেড না হতে পারেন, তাহলে থেমে যাওয়াই উত্তম।’