নির্বাচনে কী করবেন জোবাইদা?

প্রকাশিত: ৬:১৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৮ | আপডেট: ৬:১৭:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০১৮

এ বছরের শেষ দিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনের আগে দেশে ফিরছেন না তারেক রহমান এটা অনেকটাই নিশ্চিত। অন্যদিকে কারাবন্দী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আগামী নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়া মুক্তি না পেলে জিয়া পরিবারের সদস্যদের মধ্য থেকে তারেকের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান ও প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকো’র স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথিকে নির্বাচনী প্রচারণায় মাঠে চান বিএনপি নেতাকর্মীরা। কিন্তু জোবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে মামলা থাকায় তিনি প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন কী না- তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে দলটি। বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জোবাইদা রহমান বর্তমান লন্ডনে অবস্থান করছেন। তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা নিষ্পত্তি না হলে তিনি দেশে ফিরবেন না বলে জানা গেছে। কারণ দেশে ফিরলে তার গ্রেপ্তারের সম্ভাবনা আছে। জোবাইদা রহমান ও তার মা সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানুর বিরুদ্ধে চার কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন ও মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগে ২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর কাফরুল থানায় একটি মামলা দায়ের করে দুদক। মামলায় তারেক রহমানকে সহায়তা ও তথ্য গোপনের অভিযোগ আনা হয় জোবাইদা ও তার মায়ের বিরুদ্ধে।

জানতে চাইলে বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানা উল্লাহ মিয়া বলেন, ডা. জোবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে দুদকের করা মামলার রুল শুনানি বর্তমান স্থগিত রয়েছে। তবে দুদুক চাইলে আবারও আপিল করতে পারে। তবে তিনি নির্বাচনী প্রচারণায় নামবেন কিনা সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি তিনি।

অপরদিকে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে বর্তমান ঢাকায় অবস্থান করছেন শর্মিলা রহমান সিঁথি। গত বুধবার তার ছোট মেয়ে জাফিয়া রহমানকে নিয়ে কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গেও দেখা করে এসেছেন তিনি। তবে খুব শিগগির তিনি লন্ডনে চলে যাবেন বলে বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ের সূত্রে জানা গেছে।

তারেক রহমানের স্ত্রী জোবাইদা রহমান রাজনীতিতে সক্রিয় হচ্ছেন— এমন গুঞ্জন গত কয়েক বছর ধরেই শেনা যাচ্ছে। কিন্তু বরাবরই এই গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন খালেদা জিয়া।

জোবাইদা রহমান ও শর্মিলা রহমান সিঁথির নির্বাচনী প্রচারণায় নামার বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, আমি এবিষয়ে কিছু জানি না। এটা বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকেও আলোচনা হয়নি। কারণ এটা বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকের কোনো সিদ্ধান্তের বিষয়ও নয়। তবে তারা নির্বাচনী প্রচারণায় নামতেই পারেন।