নির্বাচন কমিশনারের বক্তব্য রহস্যজনক ও একচেটিয়া : ডা শাহাদাত হোসেন

এস. এম. আকাশ এস. এম. আকাশ

ব্যুরো চিফ,চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ৭:৪০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১ | আপডেট: ৭:৪০:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে ঘিরে নগর জুড়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

সোমবার মধ্যরাতে শেষ হয়েছে চসিক নির্বাচন প্রচারণা আর ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে ভোট। নির্বাচনে মেয়র পদে সাত জন ও ৪১টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৭২ জন প্রার্থী । সব মিলিয়ে টানটান উত্তেজনা মুখর গোটা চট্টগ্রাম নগরী।

তবে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের অভিযোগ,ধরপাকড়, ভয়ভীতি, নেতাকর্মীদের হুমকি-ধুমকি, নির্বাচনের দিন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকা, নির্বাচনের মাঠে সব প্রার্থীর সমান সুযোগ-সুবিধা, নির্বাচনী এলাকায় ভোটারদের সাধারণ ছুটি না থাকা, সিইসির রহস্যজনক ও হাস্যকর বক্তব্য, বিএনপির দলীয় নেতাকর্মীদের নির্বাচনী মাঠে নীরব ভূমিকা, দলীয় ক্রোন্দলে সহিংসতার আশঙ্কা, ভোটারদের উপস্থিতি ও স্বাধীন ভোট প্রয়োগের নিরাপত্তা, সর্বোপরি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হচ্ছে কিনা না নিয়ে দুরচিন্তায় আছেন বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন। নিজের নির্বাচনী অবস্থান বর্ণনার প্রশ্নে এই মেয়র প্রার্থী বলেন চট্টলাবাসীর মতামত ও ভোটের মাঠের জরিপ অনুসারে, ৪০ শতাংশ ভোটার নির্ভয়ে বাধাবিহীন ভোট প্রয়োগ এবং ইভিএমে ভোটের সঠিক নিরপেক্ষ ফলাফল প্রকাশ করলে আমি শতভাগ নিশ্চিত চট্টগ্রাম নগরীর নির্বাচিত মেয়র নির্বাচিত হবো।

কোনো ‘বিজয়’ সংগ্রাম, আন্দোলন, নিপীড়ন, নির্যাতিত, প্রতিবাদ বিহীন অর্জন করা সম্ভব নয়। বাংলাদেশের সাধীনতা সংগ্রাম, স্বৈরাচার আন্দোলন, ৫২ এর ভাষা আন্দোলন ‘সমস্ত বিজয়’ আন্দোলন সংগ্রাম ও প্রতিবাদের মাধ্যমে অর্জিত।
সাধারণ মানুষের অভিমত নিতে গিয়ে মাঠ থেকে জানা যায়, বিএনপির নেতা কর্মীরা ভয়ে বাড়িতে বা লুকিয়ে থেকে খালি মাঠে গোল বা ভোটের সুযোগ দিলে কেউ এসে তাদেরকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় বসাবে না। বিএনপির নেতাকর্মীরা এখনো দিবা স্বপ্ন দেখছে। ক্ষমতা বা নির্বাচনে জয় লাভের জন্য ত্যাগ ও সাধনার প্রয়োজন। নির্বাচনের দিন সকলের উচিত সহিংসতা পরিহার করে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের আনার ও আসার জন্য উৎসাহিত করতে হবে।

উল্লেখ্য এবার চসিক নিবার্চনে থাকছে না সেনাবাহিনী, যে কোন প্রকার নাশকতা ও বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে মাঠে কাজ করবে নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট,বিজিবি,র‌্যাব
পুলিশ ও আনসার ভিডিপির সদস্যরা ।

এ প্রসঙ্গে সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের চট্টগ্রাম মহানগরীর পর্যবেক্ষক টিমের মুখপাত্র নাজিম আকতার আমিরী ‘দি বাংলাদেশ টুডে’ কে বলেন,
চট্টলাবাসী চাই, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নির্বাচন সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ ও সকলের অংশগ্রহণমূলক হোক এতে করে নির্বাচনের প্রতি মানুষ আস্থা, আগ্রহ ও উৎসাহ বাড়বে ।