নির্বাচন কমিশনের জন্য চসিক নির্বাচন শেষ পরীক্ষা : চট্টগ্রামে ইলেকশন মনিটরিং ফোরাম

এস. এম. আকাশ এস. এম. আকাশ

ব্যুরো চিফ,চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ৯:০৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২১ | আপডেট: ৯:০৫:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২১

অবকাঠামোসহ সরকারের অধিকাংশ উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে স্থানীয় সরকার। এখানে সৎ ও যোগ্য লোক নির্বাচিত করা জনগণের দায়িত্ব। এতে কোনো প্রকার ভুল করলে বা ভুল ব্যক্তি নির্বাচিত হলে স্থানীয় জনগণকে দীর্ঘ সময় এর মাশুল দিতে হয়। একারণে স্থানীয় নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এখানে অনিয়ম হলে সার্বিকভাবে দেশেরই ক্ষতি।

নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করতে নির্বাচন কমিশনের সচেষ্ট ভূমিকা, আন্তরিকতা ও জবাবদিহিতা প্রয়োজন। সকল দলের মনোনীত প্রার্থীদেরকে সমান সুযোগ নিশ্চিত করা, সাধারণ ভোটারদের ভোট অধিকার প্রয়োগে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নেওয়া নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব। একটি গণতান্ত্রিক দেশে ভোট কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেওয়া, দুপুরের পূর্বেই বিভিন্ন প্রার্থী ভোট বর্জন করা তা শুভ লক্ষণ নয়।

সকল দল ও প্রার্থীদের উচিত ভোটের মাঠে সর্বশেষ সময়টুকু অপেক্ষা করা। শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে উপস্থিতির বিষয়ে উৎসাহিত করা। কোনো প্রকার স্বার্থান্বেষী মহলের প্ররোচনায় ভোটের মাঠ ত্যাগ করা জনবান্ধব প্রার্থীর পক্ষে উচিত নয়, এতে দুস্কৃতিকারীরা লাভবান হয়।

ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের আয়োজনে শনিবার ২৩ জানুয়ারি বিকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব বঙ্গবন্ধু হলে “পর্যবেক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা এবং নগর উন্নয়ন ও নাগরিক প্রত্যাশা শীর্ষক মুক্ত আলোচনা সভায়” ফোরামের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মওলানা মোহাম্মদ আবেদ আলী সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন নির্বাচন কমিশনের জন্য চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন শেষ পরীক্ষা, এতে ব্যর্থ হলে জনগণের কাছে জবাব দিবে হবে, কারণ নির্বাচন কমিশন তাদের মেয়াদের সর্বশেষ বড় নির্বাচন হিসেবে চট্টগ্রামের নির্বাচন অনুষ্ঠানের ভূমিকার উপর সাধারণ জনগণের সজাগ দৃষ্টি রয়েছে। কোনো প্রকার ব্যর্থতার দায় নির্বাচন কমিশন এড়াতে পারবে না। মুক্ত আলোচনা সভায় আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন যথাক্রমে- চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সাবেক কমিশনার জনাব মো: শাহ্ নেওয়াজ, সুপ্রিম কোর্টের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এডভোকেট আবুল হাশেম, ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের পরিচালক- তানবীরুল ইসলাম, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের পরিচালক ড. মুহম্মদ মাসুম চৌধুরী, সিটি নিয়ন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রেদওয়ান খান বোরহান, ফোরামের সমন্বয়কারী মো: মনির হোসেন, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন চট্টগ্রাম বিভাগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সালেহ আহাম্মদ সহ সুশীল সমাজের দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ্র উপস্থিত ছিলেন ।