নির্বাচন নিয়ে জাতীয় সংলাপের দাবি হাস্যকর : ওবায়দুল কাদের

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০১৯ | আপডেট: ৬:০৭:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০১৯
সাংবাদিকদের সাথে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি: সংগৃহীত

শামসুল হক ভূইয়া, গাজীপুর প্রতিনিধি : ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংলাপের দাবিকে হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছেন। এই নির্বাচনকে যদি তারা মনে করে সঠিক নয়, এটা তারা বলতেই পারে। আমরা বলব, জনগণ নির্বাচনে ভোট দিয়েছে, আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করেছে।

এই নির্বাচন নিয়ে সারা পৃথিবীর কোথাও প্রশ্ন নেই। বাংলাদেশেও নেই, জনগণের মধ্যে নেই। তাদেরকেই জনগণ বরং ভোট না দিয়ে প্রত্যাখ্যান করেছে। যারা আন্দোলনে প্রত্যাখাত, নির্বাচনেও জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। এখন তারা নানা দাবি উত্থাপন করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার যত চক্রান্তই করুক, বাংলাদেশের জনগণের কাছে তাদের দাবির কোনো আবেদন নেই। তিনি আরো বলেন দুনিয়ার সব গণতান্ত্রিক দেশই বাংলাদেশের এই নির্বাচনকে স্বীকৃতি দিয়েছে, প্রসংশা করেছে।

আজ শুক্রবার দুপুরে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ফ্লাইওভার ও চারলেন সড়কের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে গিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের একথা বলেন।

সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, সরকারের অগ্রাধিকার হচ্ছে- সড়কে ও পরিবহনে শৃঙ্খলা। শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই হচ্ছে অগ্রাধিকার। সেজন্য সড়ক ও জনপথ অধিদফতরকে নির্দেশ দিয়েছি, সাত দিনের নোটিশ দিয়ে যেসব সড়ক, মহাসড়ক অবৈধ দখলে আছে, সেসব রাস্তা অবৈধ দখল মুক্ত করতে হবে। এখনই এই কাজটি আমাদের করতে হবে।

পরবর্তীকালে নানা রাজনৈতিক চাপ আসে, চাপের মুখে কাজ করা যায় না। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সড়কগুলোকে অবৈধ দখল মুক্ত করব। সাত দিনের নোটিশ দিয়ে সারা বাংলাদেশে এ কাজ শুরু হবে।

মন্ত্রী বলেন, তারা কী বললেন তাতে আমাদের কিছু আসে যায় না। বাংলাদেশের জনগণ কী বললো সেটা হলো বড় কথা। জনগণ বিপুলভাবে শেখ হাসিনার উন্নয়ন, গণতন্ত্র এবং সততার পক্ষে রায় দিয়েছে। ৭০-এর পর নৌকার পক্ষে এমন গণজোয়ার কেউ আর দেখেনি। এই নির্বাচন যদি তারা মনে করে সঠিক নয় তারা বলতেই পারে। আমরা বলবো এ দেশের জনগণ বিপুল ভোটে আওয়ামী লীগ-মহাজোটকে বিজয়ী করেছে। কাজেই এই নির্বাচন নিয়ে কোনো প্রশ্ন পৃথিবীর কোথাও নেই এবং বাংলাদেশেও নেই। জনগণের মাঝেও নেই। তাদের জনগণ ভোট না দিয়ে প্রত্যাখান করেছে। এখন তারা নানা দাবি জানিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে। মন্ত্রী আরও বলেন, তারা যে সংসদে নির্বাচিত হয়ে আসবে না এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে এটাও তো অবৈধ। এটার বৈধ্যতা আছে? জনগণের রায়কে যারা অসম্মান করেছে সেটা কি বৈধ? আমি যদি প্রশ্ন করি কি জবাব তারা দেবে। তারা আগে সংসদে আসুক। অধিবেশনে যোগ দিক। ৩০ তারিখ আমি তাদের আহ্ববান করছি সংসদে যোগ দেয়ার জন্য।

এসময় মন্ত্রীর সঙ্গে ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দিদারে আলম মাকসুদ চৌধুরী, নির্বাহী প্রকৌশলী সাইফুদ্দিন, গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমিনুল ইসলাম, স্থানীয় প্রশাসন এবং সড়ক ও জনপদের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Add Image