নীলফামারীতে বাল্য বিয়ে ঢাকতে ইউ.এন.ও সামনে কনে সাজলো ভাবী

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৪৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮ | আপডেট: ১:৪৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০১৮
নীলফামারী

মোঃ সাদিকউর রহমান শাহ্ (স্কলার):  স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিয়ের অনুষ্ঠান চলছে। বরযাত্রী এসে হাজির। খবর পেয়ে সেখানে ছুটে গেলেন ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাজমুন নাহার। সঙ্গে পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।

পরিস্থিতি ঘোলাটে দেখে বাল্য বিয়ের কনে নবম শ্রেনীর ছাত্রীর অভিভাবকরা ঠিক সিনেমা নাটকের মতো কাহিনী তৈরী করে কৌশল অবলম্বন করলেন। তারা এটি বাল্য বিয়ে নয় প্রমান করতে ভ্রাম্যমান আদালতের সামনে হাজির করলেন ২২ বছরের ভাবী লাকী আক্তারকে। তবে কনে সেজে যে নারী ভ্রাম্যমান আদালতের সামনে দাঁড়িয়েছে তার গর্ভে ৭ মাসের সন্তান। সেটি বুঝে ফেলান ভ্রাম্যমান আদালত।

স্কুল ছাত্রীর বাবা ও মাকে ১০ হাজার এবং বরকে ৩ হাজার টাকা জরিমানা করেন এবং বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন। কনে খগাখারবাড়ী ইউনিয়নের রমজান আলীর মেয়ে ও দোহলপাড়া আদর্শ স্কুল এ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেনীর ছাত্রী আসমা আক্তার (১৫)। বর হলো একই উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের ঠাকুরগঞ্জ গ্রামের আব্দুল হাকিমের ছেলে জিয়ারুল ইসলাম(২২)।

এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার ৩০ আগস্ট রাত ১২টার দিকে নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ি ইউনিয়নের দোহলপাড়া গ্রামে।