নড়াইলে সিজারিয়ান অপারেশনে গাফিলতির অপরাধে ক্লিনিক মালিক ও চিকিৎসকের নামে মামলা

প্রকাশিত: ৯:০১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১ | আপডেট: ৯:০১:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১

নড়াইলের একটি ক্লিনিকে প্রসুতি মায়ের সিজারে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার ও চিকিৎসকের গাফিলতির কারনে প্রসূতি মায়ের জীবন সংকটাপন্ন হওয়ার অভিযোগে আদালতে মামলা হয়েছে। নড়াইল সদর হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা.মো.আকরাম হোসেন সহ ইমন ক্লিনিকের মালিক মো.সারোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী শিল্পী বেগমের নামে মামলা দায়ের করেছেন ভূক্তভোগী প্রসূতি ঝুমা গেমের স্বামী মাহফুজ নুর রিপন।

সোমবার (২৫ জানুয়ারী) নড়াইল সদর নালিশী আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। নালিশী আদালতের বিজ্ঞ বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমাতুল মোর্শেদা আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারী সিভিল সার্জনকে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। মামলায় বলা হয়,২৪ ডিসেম্বর ইমন ক্লিনিকে সিজার অপারেশন করাতে যান সন্তান সম্ভাবা মা ঝুমা বেগম। অপারেশন করেন সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ আকরাম হোসেন। অপারেশনে নিম্নমানের সামগী ব্যবহার করায় রোগীর তলপেট ফেটে রক্ত বের হয়ে জরায়ূ এবং প্রসাবের নালীতে পচন ধরে। অবস্থা খারাপ হলে প্রথমে নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা নিয়ে ২য় দফা অপারেশন করে জরায়ু কেটে ফেলা হয়। এই ভুল চিকিৎসায় চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিক যুক্ত।

নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার এবং চিকিৎসকের গাফিলতির ফলে ৪ লাখ টাকা খরচ সহ স্ত্রীর জীবন বিপন্ন হওয়ায় আদালতের কাছে উপযুক্ত শাস্তি দাবী করেছেন মামলার বাদী মাহফুজ নুর রিপন। মামলার স্বাক্ষী হিসেবে খুলনার গাইনী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা.শামছুন্নাহার লাকী,নড়াইল সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ সুব্রত কুমার বাগচী সহ ৫জনকে উল্লেখ করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে ইমন সার্জিক্যাল ক্লিনিকের মালিক সরোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী শিল্পী বেগম জানান,তারা রোগিদের সেবায় যথাসাধ্য চেষ্টা করেন। প্রসুতি ঝুমা বেগমকেও যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে সমস্যা হওয়ায় রোগির স্বজনরা চিকিৎসার ত্রুটির কথা বলছেন।

মামলার অপর আসামী সদর হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা.মো.আকরাম হোসেন বলেন,অপারেশন ভালোভাবেই করা হয়েছিল। এরপর তারা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে,খুলনায় চিকিৎসা নিয়েছে। কোথা থেকে কি হয়েছে সেটা রোগিকে না দেখে বলা যাচ্ছে না। সিভিল সার্জন ডা.নাসিমা আকতারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, সদ্য নড়াইলে যোগদান করায় এ ব্যাপারে তিনি কিছুই বলতে পারবেন না।