‘পরাজয় ঠেকাতে আগাম মামলা দিচ্ছে সরকার’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:১০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ | আপডেট: ১:১০:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮
মির্যা ফকরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

নির্বাচনে পরাজয় ঠেকাতে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সরকার আগাম মামলা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) আয়োজিত এক স্মরণ সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমদের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভায় মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে বাংলাদেশ একটা ভয়ঙ্কর কারাগারে পরিণত হয়েছে। বলা যেতে পারে, এটা একটা নরক হয়ে গেছে। কারণ বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামে মামলা দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি ইউনিয়নে আগাম মামলা তৈরী করে রাখছে! ঢাকায় প্রতিটি থানায় ও ওয়ার্ডে আগাম মামলা করা হচ্ছে। কেনো? কারণ যখনই নির্বাচন শুরু হবে তখন নেতাকর্মীদের আটক করবে। কী কাপুরুষ?

তিনি বলেন, ইদানিংকালে ভারতের পত্র-পত্রিকাগুলো দেখবেন, ভারতের.. এখন সুর একেবারেই অন্যরকম। বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের সাবেক রাষ্ট্রদূত পিনাক ভট্রাচার্য সম্প্রতি তার লেখায় বলেছেন, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগের লজ্জাজনক পরাজয় ঘটবে। এটাই বাস্তবতা। আর এটাকে ঠেকানোর জন্য এরা (সরকার) পাগল হয়ে গেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, গতকাল আতশবাজি করছে। কেনো? বিদ্যুৎ বেশি দিয়েছে বলে। সেই কারণে অন্ধকার আকাশে আতশবাজি করা হচ্ছে। তবে এসবে কোন কাজ হয় না।

আওয়ামী লীগ প্রচন্ড ভয় পেয়ে গেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সরকার এখন এতো ভিতু তারা সামনে নির্বাচনে পরাজয় ঠেকানোর জন্য এসমস্ত অন্যায়, অগণতান্ত্রিক ও বেআইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া অত্যান্ত অসুস্থ উল্লেখ করে মির্জা আলমগীর বলেন, এই প্রচন্ড অসুস্থতার মধ্যেও তিনি আমাদেরকে বলছেন, তোমরা আন্দোলন থামিয়ে রেখো না। তোমরা আন্দোলন, সংগ্রাম করবে এবং গণতন্ত্রের জন্য এ সংগ্রামকে তোমাদের জয়ী হতে হবে। এটাই বেগম জিয়ার শেষ কথা। গতকালও তিনি আইনজীবীদেরকে এই কথা বলেছেন। কোন আপস করছেন না। শেষ মুহুূর্ত পর্যন্ত আপস করছেন না।

কাজী জাফরের প্রতি স্মৃতিচারণ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান এই কঠিন সময়ে যদি কাজী জাফরকে সঙ্গে পেতাম তাহলে আমরা অনেক বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠতাম।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দারের সভাপতিত্বে সভায় এনপিপির চেয়ারম্যান ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, এনডিপির চেয়ারম্যান খন্দকার গোলাম মোতুর্জা, প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লিংকন, ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সিনিয়র সহ-সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।