পাঁচ তারকা সুবিধা নিয়ে নতুন রূপে ইন্টারকন্টিনেন্টাল

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:০৪ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ৫:০৪:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮

অবশেষে পাঁচ তারকামানের প্রতিটি সুবিধা নিয়ে নতুন রূপে শুরু হতে যাচ্ছে হোটেল ‘ইন্টারকন্টিনেন্টাল’। ১৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ নবযাত্রার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

নতুন রূপে শুরু হতে যাওয়া এই হোটেলের মূল ডিজাইনটি ঠিক রেখে ভেতরের প্রায় সবকিছুইর আমূল পরিবর্তন করা হয়েছে।

মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত এই হোটেলটির মালিকানা বদলের আগে প্রধানমন্ত্রী নাম দিয়েছিলেন রূপসী বাংলা হোটেল। কিন্তু এখন আগের সেই আন্তর্জাতিক নামে প্রকাশ পেতে যাচ্ছে হোটেলটি। তবে এক্ষেত্রে এসেছে ব্যাপক সংস্কার আর পরিবর্তন।

বদলে যাওয়া প্রসঙ্গে হোটেলটির মার্কেটিং ও বিজনেস প্রমোশন ডিরেক্টর সহিদুস সাদেক বলেন, হোটেলটির নাম ছিল রুপসী বাংলা। এখন ইন্টারকন্টিনেন্টাল রূপে আবির্ভূত হতে গিয়ে অনেক ক্ষেত্রেই এর পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগে প্রেসিডেন্ট স্যুইট ৬টি থাকলেও এখন করা হয়েছে ৫টি।

তিনি বলেন, পরিবর্তনের ক্ষেত্রে স্যুইট রুম ছাড়াও ডিলাক্স রুমগুলোর আয়তন আগের চেয়ে বেড়েছে। নতুন টাইলস, আধুনিক স্যানিটারি উপকরণসহ প্রতিটি বাথরুমেই থাকছে নতুন বাথটাব। রুমভেদে ৩২ ইঞ্চি থেকে শুরু করে ৪৮ ইঞ্চি টিভিসহ সবকিছুই থাকছে।

বাইরের ফুলগাছ থেকে শুরু করে ভেতরের ফানির্চারে পর্যন্ত পরিবর্তনের ছোঁয়া। অতিথিদের সুবিধা বাড়ানোর জন্য যা যা করা প্রয়োজন তার সবই করা হয়েছে। এখন শুধু অপেক্ষার পালা।

বিশালাকারের ‘ইনফিনিটি সুইমিং পুল’, অত্যাধুনিক স্পা, জাকুঝি, পুলসাইড বার, প্রশস্ত লবি, রাজকীয় প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুইট, ৫টি সুসজ্জিত রেস্টুরেন্টসহ অতুন আঙ্গিকে সাজানো হয়েছে এই হোটেলটি।

এর আগে ২৬ বর্গমিটারের অতিথি কক্ষ থাকলেও সেগুলোর পরিসর বাড়িয়ে ৪০ বর্গমিটার করা হয়েছে। ফলে আগে গেস্ট রুম ছিল ২৭২টি। এখন কমে গিয়ে হয়েছে ২২৬টি। আগে বলরুম, উইন্টার গার্ডেনসহ মিটিং রুমগুলো বিভিন্ন দিকে ছড়ানো-ছিটানো ছিল। এখন নতুন হোটেলে মোট ৯টি হল থাকবে ২১ হাজার বর্গফুটের মধ্যে।

হলগুলোর নাম পরিবর্তন করে ইতিমধ্যেই ঠিক করা হয়েছে নতুন নাম। এর মধ্যে আগের গ্রান্ড বলরুমটিকে দু’ভাগ করে রূপসী বাংলা উইন্টার গার্ডেন-১ এবং রূপসী বাংলা উইন্টার গার্ডেন-২ রাখা হয়েছে।

কারণ মূল হোটেলের নাম পরিবর্তন হলেও রূপসী বাংলার স্মৃতি হিসেবে এ হলের নামকরণ করা হয়েছে। আগের বলরুমের নাম পরিবর্তন হয়ে এখন রাখা হয়েছে ক্রিস্টাল রুম, বীথিকার নাম পরিবর্তন হয়ে পার্ল, বকুলের নাম পরির্তন করে মধুমতি ও চামেলীর নাম পরিবর্তন করে তুরাগ রাখা হয়েছে। তাছাড়া ছোট ছোট মিটিং রুমগুলোর নামও বদলে গেছে।