পাকিস্তানের মন্ত্রী বিড়াল হয়ে ফেসবুক লাইভে

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০১৯ | আপডেট: ১২:০৮:পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০১৯
ছবিঃ সংগৃহিত

খাইবার পাখতুনখোয়ার প্রাদেশিক সরকারের তথ্যমন্ত্রী শওকত ইউসুফজাই ক্যাট ফিল্টার চালু রেখেই ফেসবুক লাইভ করেছেন । এতে বিড়ালের গোলাপি রঙের কান ও গোঁফ লাগানো মন্ত্রীর ছবি মুহূর্তে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

রোববার মন্ত্রীর প্রেস কনফারেন্সটি ফেইসবুকে লাইভ প্রচারের সময় এ ঘটনা ঘটে।

তথ্যমন্ত্রী শওকত ইউসুফজাই এ ঘটনাকে মানবীয় ভুল বলে ব্যাখ্যা করেন। তবে এরকম ঘটনা ভবিষ্যততে যাতে আর না ঘটে তার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান তিনি।

ওই অনুষ্ঠানের ফেসবুকে লাইভ প্রচার করছিল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের সোশ্যাল মিডিয়া টিম। তারাই লাইভ ভিডিও প্রচার করার সময় ক্যাট ফিল্টার বন্ধ করতে ভুলে যান। লাইভটি প্রচার হওয়ার সময় অনেকেই পেইজে মেসেজ করে অ্যাডমিনকে ক্যাট ফিল্টার সরাতে বলেন।

পেইজের পক্ষ থেকে ভিডিওটি ডিলিট করা হলেও আগেই অনেকে স্ক্রিন শট রেখে দেন যা পরে দ্রুত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে টুইটারে অনেক হাসাহাসিও হয়।

পাকিস্তানের সাংবাদিক মনসুর আলী খান টুইটারে লেখেন, খাইবার পাখতুনখোয়ার সরকারের সোশ্যাল মিডিয়া দলের কল্যাণে মন্ত্রিসভায় এখন বিড়ালও আছে।

টুইটারে আরেক ব্যবহারকারী লেখেন: ফিল্টার সরাও, মানুষগুলো বিড়াল হয়ে গেছে। ফিল্টারসহ রাজনীতিবিদ শওকত ইউসুফজাইকে দেখে এক টুইটার ব্যবহারকারী লেখেন, সবচেয়ে সুন্দর রাজনীতিবিদ।

এর আগে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সাংহাই কো-অপারেশন সম্মেলনে অংশ নিয়ে কাণ্ডজ্ঞানহীন কাজ করে ইন্টারনেটে সমালোচনার পাত্র হন। সেখানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগে সব দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা যখন দাঁড়িয়ে ছিলেন তখন বসেছিলেন ইমরান খান। স্বাগতিক দেশের রাষ্ট্রপ্রধানকে স্বাগত জানাতেই প্রটোকলের অংশ হিসেবে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। কিন্তু তিনি তা না করে বসেই ছিলেন।