পাকিস্তানে সিআইএ ঘাঁটির প্রশ্নই আসে না: পাক প্রধানমন্ত্রী

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০২১ | আপডেট: ৭:৪০:অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০২১

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান স্পষ্ট করে বলেছেন, ‘আফগানিস্তানে কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য কোনও ঘাঁটি বা নিজেদের ভূখণ্ড ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না। একেবারেই না’।

সোমবার সকালে প্রচারিতব্য এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই মন্তব্য করেছেন। সাক্ষাৎকারের প্রচারিত সংক্ষিপ্তসারের বরাতে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য ডেইলি টাইমস এখবর জানিয়েছে।

অ্যাক্সিওস ওন এইচবিও অনুষ্ঠানে ইমরান খানের জানতে চাওয়া হয়েছিল, আল-কায়েদা, আইএস বা তালেবানের বিরুদ্ধে সীমান্ত পার হয়ে সন্ত্রাসবিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য পাকিস্তানে মার্কিন সরকার সিআইএ ঘাঁটি চাইলে তিনি অনুমোদন দেবেন কিনা।

জবাবে ইমরান খান বলেন, ‘অবশ্যই না’। তখন পাকিস্তানের অবস্থান নিশ্চিত হতে আবারও তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, আসলেই?

আফগানিস্তানে জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় পাকিস্তান ও আঞ্চলিক বিভিন্ন দেশের সঙ্গে ভবিষ্যৎ সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে হোয়াইট হাউজের মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সালিভান বলেছিলেন, আল-কায়েদা বা আইএস কিংবা যুক্তরাষ্ট্রে হামলা চালাতে পারে এমন কোনও জঙ্গি গোষ্ঠী যেনও আফগানিস্তান আবারও ঘাঁটি গড়তে না পারে সেজন্য ওয়াশিংটনের সামর্থ্য বৃদ্ধিতে পাকিস্তানের সঙ্গে সামরিক, গোয়েন্দা ও কূটনৈতিক চ্যানেলে গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, কয়েকজন মার্কিন কর্মকর্তা পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনা অচলাবস্থায় গড়িয়েছে। তবে অপর কয়েকজন জানিয়েছেন, আলোচনার পথ এখনও উন্মুক্ত এবং চুক্তির সম্ভাবনা রয়েছে।

প্রতিবেদনটিতে উল্লেখ করা হয়েছে, আফগানিস্তান থেকে দ্রুত মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করায় দেশটিতে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান অব্যাহত রাখতে গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহের উপায় খুঁজছে সিআইএ।

এই প্রতিবেদন প্রকাশের পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি বলেছিলেন, তারা স্থিতিশীল আফগানিস্তান চান। কিন্তু কিছু উপাদান রয়েছে যারা এই অঞ্চলে শান্তি চায় না। তিনিও জানান, পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রকে সামরিক ঘাঁটি স্থাপন করার অনুমতি দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।