পুকুরে ভাসছে মেয়ের লাশ, পাড়ে ঝুলছে মায়ের লাশ!

মানিক ভূঁইয়া মানিক ভূঁইয়া

নোয়াখালী প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৫:১৬ অপরাহ্ণ, মে ২৯, ২০২০ | আপডেট: ৫:২০:অপরাহ্ণ, মে ৩০, ২০২০
ছবি: টিবিটি

নোয়াখালী সদর উপজেলা থেকে মাও শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী ও শশুর বাড়ির সবাই পলাতক রয়েছে।

শুক্রবার (২৯ মে) সকাল ১১টার দিকে উপজেলার নোয়াখালী ইউনিয়নের ৬ং ওয়ার্ডের চরসল্লা গ্রামের মুন্না সাহেবের ছা বাড়ির পুকুর পাড়ের একটি গাছ থেকে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় বিবি মরিয়ম (২৬) আর পাশের একটি পুকুর থেকে আড়াই মাস বয়সী শিশু মাইমুনা আক্তারের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
নিহতের স্বামী আকবর আলী বাবর (৩০) কৃষি কাজ করতেন। সে একই এলাকার মৃত সোলমানের ছেলে।

নিহত বিবি মরিয়ম নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চর এলাহী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের গাঙচিল গ্রামের আবুল কাসেম মোল্লার মেয়ে এবং নিহত গৃহবধূ ৩ সন্তানের জননী ছিলেন।

নিহতের ভাই আব্দুল করিম জানান, গত কয়েক মাস ধরে নিহতের স্বামী বাবর বাড়ির পাশের বাড়ির একটি কুমারী মেয়ের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। এ নিয়ে কয়েকবার সামাজিকভাবে শালিশ হয়েছে। কিন্তু পরকীয়ার জের ধরে তাদের সংসারে প্রায় ঝগড়া বিবাধ চলছিল। এ সূত্র ধরে তারা আমার বোনকে গভীর রাতে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে দেয় এবং শিশু ভাগ্নেকে হত্যা করে পুকুরে ফেলে দেওয়া হয়।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) টমাস বড়ুয়া জানান, তাৎক্ষণিকভাবে মৃত্যুর সঠিক কোন কারণ জানা যায়নি। তবে নিহতের পরিবার দাবি করছে, পরকিয়ার জের ধরে, যৌতুকের জন্য নিহতের স্বামী এবং তার পরিবার এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। মরদেহ দু’টি উদ্ধার করে ময়না-তদন্তের জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে। এটি হত্যা না আত্মহত্যা ময়না-তদন্তের প্রতিবেদন হাতে এলে বিস্তারিত বলা যাবে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।