পৃথিবীর কোথায় আসামির সঙ্গে আইনজীবীকে টকশোতে ডাকে: হাইকোর্ট

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:০২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১ | আপডেট: ৩:০২:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যাওয়া এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার (পিকে) হালদারের সঙ্গে টকশোতে দুদকের আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খানকে ডাকার বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছেন হাইকোর্ট।

এ বিষয়ে আদালত বলেছেন, ‘পৃথিবীর কোথায় আছে যে আসামির সঙ্গে আইনজীবীকে টকশোতে ডাকে?’ পিকে হালদারকে নিয়ে একাত্তর টেলিভিশনের সাক্ষাৎকার ও টকশো প্রচারের বিষয়ে শুনানিতে হাইকোর্ট এমন প্রশ্ন তুলে উষ্মা প্রকাশ করেন।

রোববার (১৭ জানুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চে বিষয়টি শুনানি হয়।

এদিন শুনানিতে পিকে হালদারের বক্তব্য প্রচারের বিষয়ে একাত্তর টিভিকে সতর্ক করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে এ বিষয়ে দুদকের আনা আদালত অবমাননার অভিযোগ নিষ্পত্তি করে দেন।

আদালতে আজ দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে শুনানি করেন মো. খুরশীদ আলম খান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহজাবীন রব্বানী দীপা ও আন্না খানম কলি।

আর পিপলস লিজিংয়ের সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল কুমার নন্দীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোশারফ হোসেন। এছাড়াও শুনানিতে যুক্ত হন আইনজীবী আজিজ, মোহাম্মদ আশরাফ ও মোহাম্মদ শিশির মনির।

এর আগে সকালে সাক্ষাৎকার ও লাইভ টকশোতে পিকের বক্তব্য প্রচারের ব্যাখ্যার বিষয়ে কথা বলতে বেসরকারি টিভি চ্যানেল একাত্তর কর্তৃপক্ষের কয়েকজন সাংবাদিক হাইকোর্টে উপস্থিত ছিলেন।

গত ২৮ ডিসেম্বর রাত ১০টায় একাত্তর টিভিতে পিকে হালদারের সাক্ষাৎকারভিত্তিক প্রতিবেদন প্রচারিত হয়। সেদিন রাত সাড়ে ১১টায় একাত্তর জার্নালে (লাইভ টকশো) সরাসরি আলোচনায় অংশ নেন তিনি। বিষয়টি আদালত অবমাননার শামিল উল্লেখ করে দুদক হাইকোর্টে আবেদন করে।

শুনানি নিয়ে ৩০ ডিসেম্বর একাত্তর টিভিতে প্রচারিত ওই সাক্ষাৎকার ও টকশোর ভিডিও ক্লিপ ১০ জানুয়ারির মধ্যে হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে দিতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এর ধারাবাহিকতায় একাত্তর টিভি কর্তৃপক্ষ ভিডিও ক্লিপ জমা দেয়।

২০২০ সালের ১৮ নভেম্বর ‘পি কে হালদারকে ধরতে ইন্টারপোলের সহায়তা চাইবে দুদক’ শিরোনামে একটি দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশ পায়। এ বিষয়ে গণমাধ্যমে আসা প্রতিবেদন আমলে নিয়ে ওই বছরের ১৯ নভেম্বর হাইকোর্টের একই বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন।

একইসঙ্গে পিকে হালদারকে দেশে ফিরিয়ে আনতে ও গ্রেফতারে পদক্ষেপ বিষয়ে লিখিতভাবে দুদক চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের জানাতে বলেন। এ অবস্থায় পিকে হালদারের সাক্ষাৎকার প্রচারিত হলে দুদক একাত্তর টিভির বক্তব্য জানতে আবেদন করে।