পোস্তায় চামড়া কেনাবেচা শুরু

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২০ | আপডেট: ৭:০৮:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২০

পশুর চামড়া সংগ্রহের সবচেয়ে বড় মৌসুম ঈদুল আজহা। এবার ঈদের দিন দুপুর থেকে চামড়া কেনাবেচা শুরু করেছেন পুরান ঢাকার ব্যবসায়ী ও পোস্তার মালিকরা। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ও পাড়া-মহল্লার মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া সংগ্রহ করে পুরান ঢাকার লালবাগের পোস্তায় নিয়ে যাচ্ছেন। সেখানে আড়তদার ও ব্যবসায়ীরা মৌসুমী ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চামড়া সংগ্রহ শুরু করেছেন।

শনিবার (১ আগস্ট) দুপুর থেকে চামড়া সংগ্রহের প্রস্তুতি নেয়া হলেও বিকেল ৫টার পর থেকে চামড়া কেনাবেচা জমে ওঠে বলে জানান ব্যবসায়ীরা। গভীর রাত পর্যন্ত চামড়া সংগ্রহ করা হবে। এখানে চামড়া সংগ্রহের পর প্রথমে লবণজাত করা হবে। পরে তারা সাভারের ট্যানারিগুলোতে পাঠিয়ে দেবেন।

কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ীদের নেতা বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব টিপু সুলতান বলেন, দুপুর থেকেই আমরা কাঁচা চামড়া কেনা শুরু করেছি। বিকেল দিকে কেনাবেচা জমে উঠেছে। মৌসুমী ব্যবসায়ীরা চামড়া যত তাড়াতাড়ি আমাদের কাছে আনবেন তত ভালো। আমরা আগেও বলেছি চামড়া কেনার সময় যেন ভেবেচিন্তে কেনে। চামড়ার মান বুঝে আমরা দাম দেব। গড়পড়তায় ৫০০ থেকে ৭০০ টাকায় চামড়া কেনা হচ্ছে।

এবারও বাজারের অবস্থা খুব একটা ভালো নয় জানিয়ে কাঁচা চামড়ার এই ব্যবসায়ী বলেন, এবারও চামড়া সংগ্রহ কম হবে কারণ আমদানি কম। আর ট্যানারিগুলোর কাছে বকেয়া না পাওয়ায় বেশিরভাগ ব্যবসায়ী অর্থ সংকটে রয়েছেন। অন্যদিকে বিশ্ববাজারে চামড়ার তেমন চাহিদা নেই। আগের অনেক মজুত চামড়া পড়ে আছে। সব মিলিয়ে চামড়ার বাজার খুব একটা ভালো না।

ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের তথ্যানুযায়ী, বছরে বাংলাদেশে প্রায় ২২ কোটি বর্গফুট চামড়া পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৬৪ দশমিক ৮৩ শতাংশ গরুর চামড়া, ৩১ দশমিক ৮২ শতাংশ ছাগলের, ২ দশমিক ২৫ শতাংশ মহিষের এবং ১ দশমিক ২ শতাংশ ভেড়ার চামড়া। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর বাংলাদেশে এক কোটির কিছু বেশি পশু কোরবানি হয়।

এবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় গত বছরের তুলনায় সর্বোচ্চ ২৯ ভাগ কমিয়ে কোরবানির পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করেছে। ঢাকায় লবণযুক্ত প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া ৩৫-৪০ টাকা, ঢাকার বাইরে ২৮-৩২ টাকা নির্ধারণ করে দেয়া হয়। গত বছর ঢাকায় প্রতি বর্গফুট চামড়ার মূল্য ছিল ৪৫-৫০ টাকা এবং মফস্বলে ৩৫-৪০ টাকা। সারাদেশে খাসির চামড়ার মূল্য ধরা হয়েছে এবার ১৩-১৫ টাকা, গত বছর ছিল ১৮-২০ টাকা। বকরির চামড়া ১০- ১২ টাকা, গত বছর ছিল ১৩-১৫ টাকা।