পৌরবাসীর সেবক হয়ে কাজ করতে চাই : তুষার

তারেক পাঠান তারেক পাঠান

পলাশ(নরসিংদী) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৭:৫১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২০ | আপডেট: ৭:৫১:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২০

নরসিংদীর পলাশ উপজেলার আওয়ামী রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম নেয়া ত্যাগী কর্মী হিসাবে মাঠ পর্যায়ে ব্যপক পরিচিত লাভ করা আল মুজাহিদ হোসেন তুষার আসন্ন ঘোড়াশাল পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনীত সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচিত হয়ে পৌরবাসীর একজন সেবক হিসাবে কাজ করতে চান। এর আগে তিনি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা রেখে জেলাজুড়ে ব্যপক আলোচিত হয়েছেন। করোনাকালীন সময়ে জীবনের মায়া ত্যাগ করে দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডাকে সারা দিয়ে উপজেলার অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। নিজস্ব অর্থায়নে খাদ্য সামগ্রী, সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করেছেন। চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে দিনরাত এক করে কাজ করেছেন। করোনাকালীন সম্মুখসারীর যুদ্ধার দায়িত্ব পালন করেছেন।

এরই মধ্যে আসন্ন ঘোড়াশাল পৌর নির্বাচনকে সামনে রেখে চলছে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা। পৌরসভা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পাবেন বলে তিনি আশাবাদী। আল- মুজাহিদ হোসেন তুষার জানান, ঘোড়াশাল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেলে পৌর এলাকার উন্নয়ন বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারনা শুরু ও উন্নয়ন পরিকল্পনার মাধ্যমে নাগরিকদের শতভাগ সেবার বিষয়ে ভোটারদের কাছে ইসতেহার তুলে ধরব। নির্বাচীত হলে, ঘোড়াশাল পৌরসভাকে আধুনিক ও বাসযোগ্য নগরী হিসাবে গড়ে তুলতে বদ্ধপরিকর। পৌরসভার উন্নয়ন পরিকল্পনা সম্বলিত ইসতেহারে আধুনিক ও প্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলা এবং সরকারের সহায়তার জাতীয়মানের স্কুল, কলেজ,মাদরাসা,গড়বেন বলে স্বপ্ন তার।

তিনি জানান ,নারী নির্যাতন রোধ ও পৌরবাসীর নিরাপওা নিশ্চিত করার ব্যাপারে তিনি ইসতেহার অন্তভুক্ত করেছেন,সড়কের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরা স্থাপন, মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে ওয়ার্ড ভিওিক আধুনিক গ্রন্থাকার স্থাপনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করাসহ ইভটিজিং রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন। তিনি বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়ে সর্বোচ্চ গুরত্ব দিয়ে পদক্ষেপ গ্রহন করবো। সড়ক মহা সড়কের পাশে ময়লা ফেলে জনদুভোর্গ না বাড়িয়ে নির্দিষ্ট স্থানে ডাম্পিং করা হবে। পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে বর্জ্য সংগ্রহ করে আধুনিক পদ্ধতিতে রিসাইক্লিংয়ের মাধ্যমে বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব পাবে । পৌর এলাকার চারদিকে প্রশস্ত রাস্তা নির্মাণ করা হবে। যানজট নিরসনে ওয়ার্ডভিওিক রাস্তা প্রশস্ত ও প্রয়োজন অনুসারে নতুন রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহন করা হবে । সামাজিক নিরাপওায় পৌরসভার পক্ষ থেকে প্রতি ওয়ার্ডে মসজিদ,মন্দির,ও অন্যান্য উপাসনালয়,কবরস্থান,খেলার মাঠ ও পার্কিং স্থাপন করার প্রতি বেশি জোর দেবেন। এ ব্যাপারে তিনি দলীয় নেতা- কর্মী ও সকল শ্রেণীর পেশার মানুষের সহযোগীতা কামনা করেন ।

তিনি জানান, দেশ নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে জনপ্রিয়তা যাচাই ও সাধারন ভোটারদের কাছে প্রার্থীর গ্রহণযোগ্যতা বিবেচনা করে যোগ্য প্রার্থীকে দলের মনোনয়ন দিবেন বলে তিনি আশাবাদী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আল-মুজাহিদ হোসেন তুষারের পিতা মোশারফ হোসেন ছিলেন বঙ্গবন্ধু একজন কনিষ্ঠ বক্ত। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মনে প্রাণে ধারণ করে তৎকালিক কালিগঞ্জ- পলাশ যৌথ উপজেলা থানা ছাএলীগের সহ-সভাপতি ও পরবর্তীতে তিনি ঘোড়াশাল আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি এবং ঘোড়াশাল ইউরিয়া সারকারখানার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতির পদে দায়িত্ব পালন করেন। পাশাপাশি তুষারের পিতা বিভিন্ন সামাজিক বিষয়ে এলাকার অসায়,গরীব দু:খি মানুষের পাশে থেকে প্রচুর জনমত অর্জন করেছেন। তুষারের মা পলাশ উপজেলা মহিলালীগের সাধারন সম্পাদিকা পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। পিতার আর্দশে অনুপ্রাণিত হয়ে কিশোর বয়স থেকেই তুষারের আওয়ামী রাজনীতিতে হাতে খড়ি হয়। কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় ১৯৯৬ সালে জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে এলাকায় ব্যাপক প্রচার-প্রচারণার মাধ্যমে আলোচনায় আসে তুষায়। পরবর্বতীতে তিনি উপজেলা ছাএলীগের অর্থ বিষয়ক সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেন।

বর্তমানে তিনি উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদকের দায়িত্বে রাজনীতিতে নিজেকে সক্রিয় রেখেছে । পাশাপাশি তিনি নরসিংদী চেম্বার অব কর্মাসের পরিচালক, বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার এসোসিয়েশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সুলতানা সেলাই প্রশিক্ষণের প্রধান পৃষ্ঠপোষকের দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়া তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের গুরুত্ব পূর্ণ পদে রয়েছেন।