প্রকাশ্যে একে অপরকে দুষলেন গ্রিস ও তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১ | আপডেট: ৯:০৪:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১

দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা কমানোর জন্য বৈঠকে বসেছিলেন তারা। কিন্তু সাংবাদিক সম্মেলনে একে অপরকে দুষলেন গ্রিস ও তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তুরস্কের জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির মুখপাত্র ওমর চেলিক বলেছেন, গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিকোস ডেন্ডিয়াসের সাম্প্রতিক বক্তব্য তুরস্কের জন্য অবমাননাকর। এর মাধ্যমে তিনি আঙ্কারাকে অপমান করেছেন।

তুর্কি মুখপাত্র আজ (শনিবার) এক টুইটার বার্তায় আরও বলেছেন, অপরকে অপমান-অবমাননা করা এবং অন্যের সম্পর্কে আগাম বাজে ধারণা পোষণ কূটনৈতিক পন্থা নয়। এর মাধ্যমে কূটনৈতিক ক্ষেত্রে সাফল্য আসবে না।

সম্প্রতি তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু’র সঙ্গে বৈঠকে গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, তুরস্ক সেদেশের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে চলেছে। এ কারণে তুরস্কের বিরুদ্ধে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মাধ্যমে নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দেন তিনি।

সম্প্রতি তুরস্ক ও গ্রিসের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েছে। গ্রিস বলেছে, তুরস্কের বিমানে এ পর্যন্ত অনেকবার গ্রিসের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে। এছাড়া তুরস্ক ভুয়া খবর ছড়াচ্ছে।

তুরস্ক ও গ্রিসের মধ্যে বিরোধ দীর্ঘদিনের। দুই দেশের মধ্যে মূলত সমুদ্র থেকে তেল ও গ্যাস উত্তোলন এবং সাইপ্রাস ইস্যুতে বিরোধ রয়েছে। কিছুদিন আগে গ্রিস তেল ও গ্যাস তোলার চেষ্টা করলে তুরস্কও তাদের গ্যাস অনুসন্ধানকারী জাহাজ পাঠিয়ে দেয়। উত্তেজনা বাড়ে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন গ্রিসকেই সমর্থন করেছে।

তারা তুরস্ককে গ্যাস অনুসন্ধানকারী জাহাজ ফিরিয়ে নিতে বলে। তুরস্কের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করা নিয়েও কথা হয়। গ্রিসের সমর্থনে কয়েকটি দেশ জাহাজও পাঠায়।

তুরস্ক তাদের তেল অনুসন্ধানকারী জাহাজ সরানোর পর ইউরোপীয় ইউনিয়ন নিষেধাজ্ঞা জারির প্রস্তাব স্থগিত রেখেছে।