প্রতারিতদের চোখের জলে শেষ হল হজ ফ্লাইট

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৪২ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ৬:৪২:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৮

টিবিটি জাতীয়: হজে যেতে আগ্রহী প্রতারিত ৬৭৪ জনের বুকফাটা কান্না আর সিডিউল বিপর্যয়ের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে ২০১৮ সালের হজযাত্রা। শুক্রবার শেষদিনেও সৌদি এয়ারলাইন্সের সর্বশেষ ফ্লাইট ১২ ঘণ্টা দেরিতে বিকাল সাড়ে ৩টায় ছাড়ে।

৬৮ জন ভিসা পেলেও তাদের টিকিট কাটেনি এজেন্সিগুলো। এতে ভিসা হওয়া এবং টিকিট না পেয়ে আশকোনা হজক্যাম্পে এসে অবর্ণনীয় কষ্ট সহ্য করে কেঁদেকেটে বাড়ি ফিরে যেতে হয়েছে ভুক্তভোগীদের।

ফলে সরকারি হিসাবে ভিসা হয়নি ৬০৬ জনের আর ভিসা পেলেও এজেন্সির গাফিলতির কারণে টিকিট হয়নি ৬৮ জনের। তাহলে চূড়ান্ত ২০১৮ সালের হজবঞ্চিত হলেন ৬৭৪ জন।

সরেজমিন শুক্রবার দুপুরে হজক্যাম্পে গেলে একাধিক প্রতারিত হজযাত্রীকে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায়।

এ সময় বদিউজ্জামান নামে হজযাত্রী যুগান্তরকে জানান, তিনি এবং আরও ৩ জন স্ট্যান্ডার্ড হজ ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলসকে সমুদয় টাকা পরিশোধ করার পর শুক্রবার ফ্লাইটের কথা বলে হজ ক্যাম্পে আসতে বলেন এখানে এসে জানতে পারেন ভিসা হয়েছে কিন্তু তাদের টিকিট কাটা হয়নি। হজ অফিসে যোগাযোগ করে জানতে পারেন টিকিট কাটার আর সময়ও নেই।এতে তারা বুঝতে পারেন যে, ওই এজেন্সি তাদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে।

রত্না নামের অপর একজন যুগান্তরকে জানান, তার বোন হজে যাওয়ার জন্য আকবর ট্রাভেলসকে সমুদয় টাকা পরিশোধ করেন। আকবর ট্রাভেলস থেকে পরে নওশাদ ট্রাভেলসকে তাদের রিপ্লেস করে দেয়া হয়।

তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে শুক্রবার হজক্যাম্পে এসে বৈদ্যুতিক পাখা এবং সুযোগ-সুবিধা ছাড়া অবর্ণনীয় কষ্ট সহ্য করে আজ জানতে পারেন, তাদের টিকিট হয়নি। তারা এবার হজে যেতে পারছেন না। এতে তার বোন কান্নাকাটি করেন। তিনি নওশাদ ট্রাভেলসের মোহাম্মদ উল্লাহর বিচার দাবি করেন।

হজ অফিসের পরিচালক সাইফুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, আগে যাদের অভিযোগ পেয়েছি তাদের বিষয়গুলোর সমাধান করে ভিসা এবং টিকিটের ব্যবস্থা করেছি। কিন্তু এখন যারা অভিযোগ করছেন তাদের সময় আগেই শেষ হয়ে গেছে। এখন আর নতুন করে টিকিট কাটার কোনো সুযোগ নেই। বিমানের নতুন কোনো ফ্লাইটও বাকি নেই। তাই তাদের বিমানবন্দর থানায় মামলা করতে এবং আমার কাছে লিখিত অভিযোগ করতে বলেছি। হজের পর দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোরভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হজক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর মোট ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজযাত্রী হজে যাবেন বলে নিবন্ধন হয়েছে। শুক্রবার শেষ ফ্লাইটসহ ১ লাখ ২৬ হাজার ৫০ জন হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। এর মধ্যে সৌদি এয়ারলাইন্সে ৬৩ হাজার ২৪০ জন ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে ৬২ হাজার ৮১০ জন যাত্রী গেছেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজযাত্রী পরিবহন শেষ করেছেন ১৫ আগস্ট। সৌদি এয়ারলাইন্সের হজযাত্রী পরিবহন শেষ করেছে ১৭ আগস্ট।