প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে প্রেমিকাকে ধর্ষণ, যুবক আটক

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০ | আপডেট: ৮:৫৮:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৯, ২০২০

সোনাগাজীতে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে প্রেমিকার ধর্ষণ মামলার আসামি হলেন আরিফুল ইসলাম সাকিব নামে এক যুবক। আরিফুল উপজেলার সুজাপুর গ্রামের সারেং বাড়ির মৃত আবুল কাশেমের ছেলে।

গত শনিবার রাতে পুলিশ তাকে আটক করার পর রবিবার রাতে তার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন স্কুল পড়ুয়া প্রেমিকা। পরে সোমবার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মডেল থানার উপপরিদর্শক এয়াকুবুর রহমান জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে অভিযুক্ত সাকিবকে ফেনীর আদালতে সোপর্দ করেন।

গত বৃহস্পতিবার সাকিব ও এলাকার কয়েক ব্যক্তির প্ররোচনায় স্কুলছাত্রীকে ১১জন মিলে ধর্ষণ করেছে বলে মডেল থানায় অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযোগটি তদন্ত করলে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তাদের প্ররোচনার বিষয়টি বেরিয়ে আসে।

স্থানীয়রা জানায়, সাকিবের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী বাড়ির কুয়েত প্রবাসীর নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। উভয় পরিবারের সম্মতিতে তাদের বিয়ের কথাবার্তাও হয়। রাতে সাকিব তার প্রেমিকার সঙ্গে কথা বলতে তাদের বাড়িতে যায়।

এলাকার কয়েক যুবক তাদের দেখে চিৎকার শুরু করলে সে সটকে পড়ে। বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকার কয়েক ব্যক্তির যোগসাজশে সাকিব তার প্রেমিকাকে চাপ প্রয়োগ করে বলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করলে সে তাকে বিয়ে করবে না। সম্পর্ক রক্ষায় বাধ্য হয়ে সে ওই যুবকদের নামে থানায় ধর্ষণের অভিযোগ করে।

মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম পলাশ বলেন, থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর স্কুলছাত্রীকে প্ররোচিত করে তাকে ১১ জন মিলে ধর্ষণ করেছে এমন ভিডিও তৈরি করে সাকিব সাংবাদিকসহ বিভিন্ন মানুষের কাছে প্রেরণ করে। বিষয়টি আমাদের নজরে এলে পুলিশ স্কুলছাত্রীকে হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে সবকিছু স্বীকার করে। পরে স্কুলছাত্রী স্বেচ্ছায় তাকে বিয়ের প্রলোভনে গত ২৮ সেপ্টেম্বর ধর্ষণ করেছে উল্লেখ করে রবিবার রাতে সাকিবের নামে মামলা দায়ের করে।

তিনি আরও বলেন, স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে জবানবন্দি গ্রহণের জন্য তাকে ফেনীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়েছে।