প্রথম শ্রেণির বিমান ভ্রমণ নিষিদ্ধ করলেন ইমরান

প্রকাশিত: ১২:২৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ১২:২৯:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০১৮

পাকিস্তানে রাষ্ট্রীয় তহবিল থেকে প্রেসিডেন্ট এবং মন্ত্রিসভার সদস্যসহ সরকারি কর্মকর্তাদের প্রথম শ্রেণির বিমানে ব্যয় নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত্ব মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বলেছেন, বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, এখন থেকে প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, প্রধান বিচারপতি, সিনেটের চেয়ারম্যান, জাতীয় পরিষদের স্পিকার ও মুখ্যমন্ত্রীসহ সরকারের অন্যান্য শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা বিমানের ক্লাব অথবা বিজনেস ক্লাসে ভ্রমণ করবেন।

তিনি বলেন, সেনাপ্রধানেরও বিমানের প্রথম শ্রেণিতে ভ্রমণের অনুমতি নেই এবং তিনি সবসময় বিজনেস ক্লাসেই ভ্রমণ করেন।

দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ মাত্র এক বছরে বিমান ভ্রমণে সরকারি তহবিল থেকে ৫১ বিলিয়ন রূপি ব্যয় করেছিলেন বলে দাবি করেছেন ফাওয়াদ।

একই সঙ্গে রাষ্ট্রীয় অথবা দেশের ভেতরে সফর জন্যও বিশেষ বিমান ব্যবহার না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তানের সদ্য ক্ষমতায় নেয়া প্রধানমন্ত্রী ও পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফের (পিটিআই) প্রধান ইমরান খান। বিজনেস ক্লাসেই তিনি সব সফর সম্পন্ন করবেন বলে জানিয়েছেন।

পাকিস্তানের গত ২৫ জুলাইয়ের সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর ইমরান খান প্রধানমন্ত্রীর জন্য প্রাসাদসম প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ব্যবহার করবেন না বলে ঘোষণা দেন। তবে ওই বাসভবনে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের জন্য ছোট একটি অংশ রয়েছে; যেখানে তিনি থাকবেন বলে জানান।

প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার জন্য বিশাল ইউনিট কমিয়ে আনার ঘোষণাও দিয়েছেন সাবেক এই ক্রিকেট তারকা। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি মাত্র দুটি গাড়ি ব্যবহার করবেন এবং দু’জন গৃহকর্মী রাখবেন।