প্রধানমন্ত্রীর জাতিসঙ্ঘ সফরকে ঘিরে মুখোমুখি আ’লীগ-বিএনপি

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:১৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮ | আপডেট: ৩:১৩:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

জাতিসঙ্ঘের সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাত দিনের সফরে যুক্তরাষ্ট্রে আগমন উপলক্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের রাজনীতি। বাড়ছে অভ্যন্তরীণ দলীয় কোন্দল, হাতাহাতি, হুমকি-ধমকি চলছে দেশীয় কায়দায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিমানবন্দরে বরণ, নাগরিক সম্বর্ধনা এবং জাতিসঙ্ঘে ভাষণের সময় ব্যাপক শোডাউনের প্রস্ততি নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। নিউ ইয়র্কেও বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটস, জ্যামাইকা, ব্রুকলিন, ব্রন্কসে শোভা পাচ্ছে আওয়ামী লীগ নেত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে রং বেরঙের ব্যানার, ফেস্টুন।

অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনগুলোও ‘যেখানেই শেখ হাসিনা, সেখানেই প্রতিরোধ’ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। বিমানবন্দরে কালো পতাকা প্রদর্শন, প্রধানমন্ত্রীর সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানের ভেন্যু ও জাতিসঙ্ঘ সদর দফতরের সামনে ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শনের প্রস্তুতি নিয়েছে দলটি। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর সফরকে না বলতে বেশ কয়েকটি সামাজিক সংগঠনও নিয়েছে অভিন্ন কর্মসূচি।

গ্রেফতার আলোকচিত্রি শহিদুল আলমের বিষয়টি বিশ্বনেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে জাতিসঙ্ঘের অধিবেশন চলাকালে অবস্থান কর্মসূচিরও উদ্যোগ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন ও কর্মীরা।

বিগত বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগে ছোটখাটো বিবাদ থাকলেও এবার অভ্যন্তরীণ কোন্দল বেশ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্ব বিগত বছরগুলোতে দলের অঙ্গ সংগঠনগুলো ঐক্যবদ্ধ থাকলেও এবার প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের রাজনীতি। গেল এক সপ্তাহ ধরে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকটি গ্রুপ সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে প্রেস ব্রিফিং, সভা-সমাবেশ ও শোডাউন করে যােেচ্ছ।

এমনি বাস্তবতায় গত বুধবার আওয়ামী যুবলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে জ্যাকসন হাইটস এলাকায় প্রকাশ্যে মারামারিতে জড়িয়ে পড়লে এক ন্যাক্কারজনক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে নিউ ইয়র্ক সিটি পুলিশ তিনজন যুবলীগ কর্মীকে গ্রেফতার করেছে। যুবলীগের একটি অংশ অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে তাকে ‘স্বাগত’ জানিয়ে যুবলীগের মিছিলে প্রতিপক্ষ হামলা করলে দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কমিটিকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এর একটি অংশ যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি ড. সিদ্দিককে সমর্থন করছে। অপরটিকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে ড. সিদ্দিক বিরোধী গ্রুপ। সিদ্দিক বিরোধী গ্রুপ আশা করছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার এবারের সফরে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নতুন কমিটি গঠন করে দিয়ে যাবেন। শনিবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের এক সভায় ড. সিদ্দিকুর রহমান আওয়ামী পরিবারের নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর যুক্তরাষ্ট্র সফরে এমন কিছু করবেন না যাতে নেত্রীর অসম্মান হয়। প্রধানমন্ত্রীর সফরের পর যে শাস্তিই দেয়া হবে তা আমি মাথা পেতে নিবো।

অপরদিকে, প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে অভ্যন্তরীণ কোন্দলে জড়িয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি। এদের মধ্যে বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফ সম্রাট ও সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি গিয়াস আহম্মেদ নেতৃত্ব দিচ্ছেন একটি গ্রুপের। অপর গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. মুজিবুর রহমান ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর যুক্তরাষ্ট্র সফরকে না বলতে আলাদা ভাবে কর্মসূচি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি শরাফত হোসেন বাবু ও জসীম ভূঁইয়ার নেতৃত্বাধীন একটি গ্রুপ। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির গেল ১০ বছর যাবত কোনো কমিটি নেই।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার দুপুরে নিউ ইয়র্ক পৌঁছার কথা রয়েছে। সোমবার সকাল থেকে জাতিসঙ্ঘে বেশ কয়েকটি সাইড ইভেন্টে যোগ দেবার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর। ২৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী বাংলায় জাতিসঙ্ঘের সাধারণ পরিষদে ভাষণ দেবেন।